গ্লাভস থেকে ভাইরাস ছড়াচ্ছে না তো!

প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০২০, ১৮:৫৪

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

করোনাভাইরাস মহামারির এই সময়ে প্রতিটি সচেতন মানুষের দুশ্চিন্তা বাজার করতে যাওয়া নিয়ে। দেশের কাঁচাবাজারগুলোয় এখনো প্রতিনিয়ত জনসমাগম বাড়াচ্ছে সংক্রমণের ঝুঁকি। আবার সেখানে একেবারে যাওয়া বন্ধও করা সম্ভব হচ্ছে না। এই অবস্থায় অনেকেই মাস্কের পাশাপাশি গ্লাভস ব্যবহার করছেন। তবে কতটুকু সুরক্ষা দিচ্ছে এই গ্লাভস, সঠিকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে তো? গ্লাভস থেকেই ভাইরাস ছড়াচ্ছে না তো?

 আমাদের হাতের মতো গ্লাভসও ভাইরাস দিয়ে সংক্রমিত হয়। অর্থাৎ গ্লাভস পরে কোনো সংক্রমিত স্থান স্পর্শ করলে তাতে ভাইরাস লেগে যাবে এবং তারপর একই গ্লাভস অন্য যেসব স্থান স্পর্শ করা হবে, সেখানেও ভাইরাস পৌঁছে যাবে। করোনাভাইরাসের একটি নির্দিষ্ট ধরনের বস্তুতে আটকে থাকার ক্ষমতা ওই বস্তুটি কি উপাদানে তৈরি তার ওপর নির্ভর করে। ফলে ত্বকে করোনাভাইরাস যতটুকু লেগে থাকতে পারে রাবার কিংবা ‘ল্যাটেক্স’ দিয়ে তৈরি গ্লাভসে তার থেকেও ভালো লেগে থাকার আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

তাই হাতের মতো গ্লাভস ব্যবহার করলে সেটাও ধুতে হবে। গ্লাভস ব্যবহারের কারণে যদি নিজেকে সুরক্ষিত মনে করেন তবে ভুল হবে। কারণ এটি পরার পর বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া কিংবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার প্রয়োজনীয় আপনার কাছে কমে যেতে পারে। খালি হাতে কাজ করলে আপনি কয়েকবার হাত পরিষ্কার করতেন। কিন্তু গ্লাভসের কারণে তা করছেন না। ফলে ওই গ্লাভসের মাধ্যমেই আশপাশের সবখানে আপনি ভাইরাস ছড়িয়ে দিচ্ছেন।

এদিকে, সঠিক উপায়ে গ্লাভস খোলাটাও জরুরি। অন্যথায় নিজের শরীরেই ভাইরাস ছড়িয়ে দেবেন নিজেই। অনেকেই এই সঠিক উপায় হয়ত জানেন না, এমনকি চিকিৎসা সেবা দেন এমনও অনেকে তা জানেন না কিংবা নিয়মিত মেনে চলেন না।

ব্যবহৃত গ্লাভস খোলার সময় হাতের কব্জির কাছ থেকে চিমটি দিয়ে ধরে তা টেনে খুলতে হবে যাতে খোলার সময়ই তা উল্টে যায় অর্থাৎ ভেতরের দিকটা যেন বাইরে চলে আসে। এবার গ্লাভস পরা হাতে খোলা গ্লাভসটি ধরে খালি হাত দিয়ে একইভাবে অপর গ্লাভসটি খুলতে হবে। আর তা দিয়ে আগের খোলা গ্লাভসটি দিয়ে ঢেকে বল পাকিয়ে ডাস্টবিনে ফেলতে হবে।

 পিডিএসও/তাজ 

সর্বাধিক পঠিত