ভালোবাসা দিবসের সাজ

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০:৩৮

তানজিনা হাসান
ভালোবাসা দিবসে পোশাক নির্বাচনে অনেকে লালকে প্রাধান্য দেন। ছবি : সংগৃহীত

আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। দিনটি সবার জন্যই অনেক আনন্দের। তবে তরুণ-তরুণীদের জন্য একটি বিশেষ দিন। অনেকেই নিজের মনের কথা প্রিয় মানুষটিকে বলার জন্য এ দিনটিকেই বেছে নেন। এদিন মনটাও থাকে রঙিন। তাই প্রত্যেকেই চান ভালোবাসার রঙে এ দিনে নিজেকে রাঙাতে। ভালোবাসা দিবসে পোশাক নির্বাচনে অনেকে লালকে প্রাধান্য দেন।

এ প্রসঙ্গে ফ্যাশন ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, ভালোবাসার রং লাল। তাই বলে সবকিছু লাল পরলে ভালো লাগবে না। শাড়ি, ব্যাগ কিংবা জুতাসহ অন্যান্য দু-একটি অনুষঙ্গ রাখতে পারেন লাল রঙের। তবে শাড়ি পরার ধরনে বাঙালিয়ানা আনতে পারলে ভালো হয়। চাইলে তাজা ফুল জড়াতে পারেন চুলে বা হাতে। জিন্স, ফতুয়া, টপস, সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে কপারের বড় বালা সুন্দর লাগবে। আবার পোশাকটা লাল হলে অনুষঙ্গ একদম বাদও দিতে পারেন।

চুলের সাজ : ভালোবাসা দিবসে পোশাকের পাশাপাশি চুল, চোখ এবং মুখের সাজকেও। এ ক্ষেত্রে হেয়ারোবিক্স ব্রাইডালের রূপ বিশেষজ্ঞ তানজিমা শারমিন মিউনি বলেন, সকালে চুল ধুয়ে কন্ডিশন করে নিন। খোলা চুলে ওয়েভ কার্ল, স্পাইরাল করে নিতে পারেন। চাইলে কপাল ঘেঁষে চিকন বেণি করে নিতে পারেন। পনিটেইল, ফ্রেঞ্চ বেণিও ভালো লাগবে। এ ছাড়া যারা শাড়ি পরবেন, তারা হাতখোঁপা করে নিতে পারেন। হরেক রকম চুলের কাঁটা গুঁজে খোঁপায় তুলুন নতুন ছন্দ। খেয়াল রাখবেন, চুল যেন সব সময় পরিষ্কার ও টিপটপ দেখায়। ব্যাগে পাঞ্চ ক্লিপ ও ব্রাশ রাখবেন।

চোখের সাজ : ভালোবাসা দিবসের মেকআপে চোখের সাজকে প্রাধান্য দিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে হারমনি স্পা ও ক্লিওপেট্র বিউটি স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা রিতা বলেন, ভালোবাসা দিবসের মেকআপে চোখের সাজকে প্রাধান্য দিন। মুখের মেকআপ হবে হালকা। প্রথমে মুখে পাঁচ মিনিট ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে ত্বক নরম করে নিন। তারপর ফোঁটা ফোঁটা স্টিক ফাউন্ডেশন লাগিয়ে ভালোমতো মাখুন। হালকা ফেস পাউডার লাগান, তার ওপর পিচ কিংবা গোলাপি ব্লাশন বুলিয়ে নিন। হয়ে গেল সারা দিনের মেকআপ বেজ।

ঠোঁটের সাজ : সারা দিনের জন্য ঠোঁট সাজাতে ফারজানা আরমানের পছন্দ পেনসিল ম্যাট লিপস্টিক। দিন হোক আর রাত, লাল, কমলা কিংবা অন্য উজ্জ্বল রং আপনি বেছে নিতে পারেন।

খেয়াল রাখবেন যেসব বিষয় : ভালোবাসা দিবসে কেবল উৎসবের বন্যায় ভাসলেই হবে না। খেয়াল রাখতে হবে স্বাস্থ্যেরও। এজন্য সকালে ৩০ মিনিট ফ্রিহ্যান্ড ব্যায়াম, হালকা মেডিটেশন, প্রাণায়াম কিংবা যোগব্যায়াম করে নিলে সারা দিন শরীর ঝরঝরে থাকবে। এদিন অনেক পথ হাঁটা হয়। তাই পায়ের জুতা আরামদায়ক হওয়া চাই। এ ছাড়া বাইরে কম ক্যালরির খাবার যেমন স্যান্ডউইচ পাস্তা, কম পনির দেওয়া পিৎজা খান। পানি বা জুস খাবেন। এ মৌসুমে বাতাসে প্রচুর ধুলাবালি থাকে। যাদের অ্যাজমা বা অ্যালার্জি আছে, তারা মাস্ক এবং ইনহেলার নিতে ভুলবেন না। এভাবে করলে দেখবেন আপনার ভালোবাসার দিনটি হয়ে উঠবে আরো বেশি সুন্দর এবং আনন্দময়।

পিডিএসও/হেলাল