দীর্ঘ সময় হেডফোন ব্যবহারে ৫ বিপদ

প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ১৮:২৮

অনলাইন ডেস্ক

অনেকেই দিনের বেশির ভাগ সময় কানে হেডফোন গুঁজে রাখেন। বিশেষ করে রাস্তা পারাপারের সময়, রেলক্রসিং পারাপার কিংবা, রেললাইন বরাবর হাঁটার সময়ও কানে হেডফোন গুঁজে রাখেন। এতে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হতে হয়। শুধু তাই নয় বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দীর্ঘ সময় হেডফোন ব্যবহারে নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা হতে পারে।

অতিরিক্ত হেডফোন ব্যবহারে পাঁচ বিপদ ঘটতে পারে বলে জানাচ্ছেন তারা।

বিপদগুলো হলো : ১. হেডফোন ব্যবহার সময় ৯০ ডেসিবেল বা তার বেশি মাত্রার আওয়াজ সরাসরি কানে গেলে শ্রবণে সমস্যা হতে পারে।

২. হেডফোন কারো সঙ্গে ভাগাভাগি করে ব্যবহারে সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

৩. বেশির ভাগ হেডফোন এয়ার-টাইট ধরনের। এ কারণে কানে বাতাস প্রবেশ করতে পারে না। এতে ঝুঁকি তৈরি হতে পারে।

৪. এক গবেষণায় দেখা গেছে, হেডফোনে দীর্ঘ সময় উচ্চশব্দে গান শুনলে সেটা খোলার পরও কিছুক্ষণ ভালোভাবে কানে শোনা যায় না।

৫. হেডফোন দিয়ে উচ্চশব্দে গান শোনার কারণে চিরতরে শ্রবণ শক্তি হারানোর আশঙ্কা থাকে।

তবে বিশেষজ্ঞরা হেডফোন গান শোনার জন্য কিছু কৌশল ও নিয়ম বাতলে দিচ্ছেন। এতে জীবন ও কান দুই-ই বাঁচবে বলে জানাচ্ছেন তারা। দীর্ঘ সময় হেডফোনের ব্যবহার করতে হলে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিতে হবে।তারা চারটি কৌশল বা নিয়ম জানাচ্ছেন।

কৌশলগুলো হলো : ১. যে সংস্থার মোবাইল ব্যবহার করছেন, ঠিক সেই সংস্থার, সেই মডেলটির ইয়ারফোনই ব্যবহার করুন।

২. ইয়ারফোনে গান শোনার সময় দেখে নিন ওই ভলিউমে বাইরের চিৎকার, আওয়াজ এসবই কানে পৌঁছাচ্ছে কিনা। তা না হলে আওয়াজ আরো কমান। ৩. হাঁটার সময় বা রাস্তা-লাইন পেরনোর সময় হেডফোন ব্যবহার করবেন না।

৪. একটানা আধাঘণ্টার বেশি ইয়ারফোন ব্যবহার করবেন না। মোবাইলে কোনো সিনেমা দেখতে হলে আধাঘণ্টা বিরতি নিন।

পিডিএসও/তাজ