ঈদের রান্নায় মজাদার ৪ রেসিপি

প্রকাশ : ২৩ আগস্ট ২০১৮, ১৭:০০

অনলাইন ডেস্ক

মহান ত্যাগের বারতা নিয়ে ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ উদযাপিত হচ্ছে। এ সময়ে ঘরে ঘরে মাংসের প্রাপ্যও থাকে বেশ। এসব মাংস দিয়ে তৈরি করা যায় নানা রকম মজাদার রেসিপি। তেমনি কয়েকটি রেসিপি দিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের আয়োজন।

থাই বিফ সালাদ

উপকরণ : হাড্ডি ছাড়া গরুর মাংস ২৫০ গ্রাম। লেটুসপাতা পরিমাণমতো। শসা মাঝারি আকারের ১টি। টমেটো ২টি। সবুজ, লাল আর হলুদ কাপসিক্যাম (প্রতিটির ৪ ভাগের এক ভাগ)। পুদিনা পাতা ৮ থেকে ১০টি। ধনেপাতা ৮ থেকে ১০টি। লাল রঙের মরিচ ২টি। রসুনের ২ কোয়া। আদা ৫ গ্রাম। লাল পেঁয়াজ আধা ও সেসিমি সিডস। ড্রেসিংয়ের জন্য লাগবে ২ টেবিল-চামচ লেবুর রস। সেসিমি অয়েল ১ টেবিল-চামচ। অয়েস্টার সস ১ টেবিল-চামচ। অলিভ অয়েল ২ টেবিল-চামচ। লবণ, চিনি, মরিচগুঁড়া স্বাদের জন্য।

প্রস্তুত প্রণালি : মাংস ছোট ছোট করে কেটে নিন (৫ মিমি সাইজের)। ড্রেসিংয়ের আধা অংশ নিয়ে মাংস ২-৩ ঘণ্টা ধরে মেরিনেইট করুন। ক্যাপসিকাম, টমেটো আর শসা ধুয়ে কেটে একটি পাত্রে ড্রেসিংয়ে মিলিয়ে নিন। ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে মাংস ভালোভাবে ভেজে নিন। একটি প্লেটে সালাদ সাজিয়ে তার ওপর মাংস দিয়ে তাতে সেসিমি সিডস ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন।

ভুঁড়ি দিয়ে ভূরিভোজন

উপকরণ : ভুঁড়ি এক কেজি (ছোট করে কাটা)। পেঁয়াজকুচি ১ কাপ (মোটা করে কাটা)। বড় রসুন ৩টি (খোসা ছাড়ানো)। পেঁয়াজবাটা ২ টেবিল-চামচ। রসুনবাটা ১ টেবিল-চামচ। আদাবাটা ১ চা-চামচ। মেথি বাটা ১ চা-চামচ। মরিচগুঁড়া দেড় চা-চামচ। হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ। ধনিয়াগুঁড়া ১ চা-চামচ। জিরাগুঁড়া আধা চা-চামচ। এলাচ ৪টি। দারুচিনি ৫টি। তেজপাতা ৪টি। তেল আধা কাপ। লবণ পরিমাণমতো।

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে প্রেসার কুকারে ৩ কাপ পানি আর সামান্য লবণ দিয়ে ভুঁড়ি সিদ্ধ করে নিন। ৬-৮ সিটি দিলেই নামিয়ে ফেলুন। ভুঁড়ি সিদ্ধ হওয়ার যে পানি থেকে যায়, সেটা আলাদা একটি পাত্রে রেখে দিন। আর ভুঁড়ি আলাদা করে ফেলবেন। কেউ যদি পানি অর্থাৎ স্টকটা না খেতে চান, তবে ফেলে দিতে পারেন। তবে রান্নায় এটা ব্যবহার করলে ভালো লাগে খেতে। এখন নন স্টিক প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজকুচি আর এলাচ, দারুচিনি, তেজপাতা দিয়ে ভাজতে থাকুন, যতক্ষণ না গন্ধ ছড়ায়। এবার ভুঁড়ি দিয়ে একটু নেড়ে বাকি সব মসলা, লবণ আর সামান্য স্টক দিয়ে কষাতে দিন। কষে গেলে বাকি স্টক ঢেলে দিন আর রসুনের কোয়াগুলো দিয়ে দিন। এবার ঢেকে দিন। যখন দেখবেন তেল ওপরে উঠে এসেছে আরো কিছুক্ষণ ভাজুন। ভাজা ভাজা হয়ে গেলে নামিয়ে ফেলুন। এবার পোলাও, লুচি কিংবা পরোটার সঙ্গে পরিবেশন করুন।

বিফ কালা ভুনা

উপকরণ : গরুর মাংস ১ কেজি। টমেটো পেস্ট ১ টেবিল-চামচ। পেঁয়াজকুচি ১ কাপ। আদা ১টি। রসুন আস্ত ১টি। শুকনা মরিচ ৩-৪টি। মরিচগুঁড়া আধা চা-চামচ। জিরাগুঁড়া ১ চা-চামচ। ধনেগুঁড়া ১ চা-চামচ। গরম মসলাগুঁড়া দেড় চা-চামচ। ধনেপাতা কুচি আধা কাপ। লবণ পরিমাণমতো। তেল আধা কাপ।

প্রস্তুত প্রণালি : পাতিলে তেল গরম করে পেঁয়াজ বাদামি করে ভেজে তুলুন। আদা, রসুন আর শুকনা মরিচ আধা কাপ পানি দিয়ে পেস্ট করে নিন। পেঁয়াজ বাদামি হলে তার মধ্যে ঢেলে দিন। ২ মিনিট পর বাকি মসলাগুলো দিয়ে আধা মিনিট ভাজুন। এবার মাংস দিন। ১৫ মিনিট ধরে মাঝারি আঁচে কষাতে থাকুন। টমেটো পেস্ট দিন। এবার অল্প অল্প করে পানি দিতে থাকুন আর রান্না করুন। একেবারে বেশি পানি দেবেন না, মাংস রান্না না হওয়া পর্যন্ত এমন করতে থাকুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে গেলে আর পানি দেবেন না, ধনেপাতা-কুচি দিন। এবার পানি না শুকানো পর্যন্ত মাংস বেশি আঁচে রান্না করতে থাকুন। একসময় তেল ওপরে উঠে আসবে আর মাংস খুলে খুলে যাবে। তৈরি হয়ে গেল বিফ কালা ভুনা।

বিফ কোফতা কারি

উপকরণ : গরুর কিমা ২ কেজি। পেঁয়াজ ১০০ গ্রাম কুচি করা। ধনেপাতা ১৫ গ্রাম। লবণ স্বাদমতো। কাঁচামরিচ ৫ গ্রাম। শুকনা মরিচের গুঁড়া ১০ গ্রাম। কাজুবাদাম ভাঙা ৭৫ গ্রাম। অ্যানিসিডগুঁড়া ৫ গ্রাম। তেল ৫০০ মিলি। হলুদগুঁড়া ৫ গ্রাম। কারি পাউডার ৫ গ্রাম। টমেটো ৫০ গ্রাম। জিরারগুঁড়া ৫ গ্রাম।

প্রস্তুত প্রণালি : মাংসের সঙ্গে পেঁয়াজ, মরিচ, ধনেপাতা মিলিয়ে কোফতার মতো গোল করে নিন। এবার পেঁয়াজ, টমেটো, কারি পাউডার, কাজুবাদাম, মরিচগুঁড়া, হলুদ, জিরা ও অ্যানিসিডগুঁড়া মিলিয়ে ঝোলের মতো বানিয়ে নিন। আর এই ঝোলে গরুর মাংস রান্না করুন।

পিডিএসও/তাজ