নতুন টাকায় ঈদ সালামি

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৮, ১৭:৪৪

পাঠান সোহাগ

ঈদে নতুন জামা, জুতো আর নানা প্রসাধনী সামগ্রী উৎসবের মাত্রা পূর্ণতা দেয়। সেই সঙ্গে ‘ঈদের সালামি’ হিসেবে নতুন টাকার রয়েছে আলাদা কদর। বাড়ির ছোট ছেলেমেয়েদের হাতে ‘ঈদ সালামি’ হিসেবে নতুন টাকা দেওয়া উৎসবে নতুন মাত্রা যোগ করে। পাড়াপড়শিও বাদ যান না। অনেকে দান-খয়রাতের জন্যও নতুন টাকা দিয়ে থাকেন। এ কারণে ঈদকে ঘিরে দেশে নতুন টাকার বিপুল লেনদেন হয়। একে ঘিরে তৈরি হয় ‘টাকাবাণিজ্য’।

তাই রাজধানীতে নতুন টাকার রমরমা বাণিজ্য চলছে। ফুটপাতে জমে উঠেছে নতুন টাকার বাজার। রাজধানী ঢাকার ব্যাংকপাড়া মতিঝিলসহ গুলিস্তান, চকবাজার, সদরঘাটের বেশ কয়েকটি জায়গায় চলছে নতুন টাকার ব্যবসা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নতুন ২ টাকার ১০০টি নতুন নোট বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা বেশিতে।

৫ টাকার ১০০টি নতুন নোট বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা থেকে ১০০ টাকা বেশি দরে। ১০ টাকার ১০০টি নতুন নোট বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা বেশি দরে। ২০ টাকার ১০০টি নতুন নোট বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা বেশি দরে। ৫০ টাকার ১০০টি নতুন নোট বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা বেশি দরে। ১০০ টাকার ১০০টি নতুন নোট বিক্রি হয় ৮০ থেকে ১২০ টাকা বেশিতে।

গুলিস্তান শপিং কমপ্লেক্সে সামনে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সামনে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নতুন বান্ডিলে সারি সারি নতুন টাকা সাজিয়ে রেখেছেন দোকানিরা। তবে দুই, পাঁচ, ১০, ২০, ৫০ টাকার নতুন নোট বেশি বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়াও নতুন ৪০, ৬০ এবং ৭০ টাকার স্মারক নোটও টেবিলে সাজিয়ে রেখেছেন তারা।

গতকাল গুলিস্তানে নতুন টাকা বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংক টাকার নতুন নোট বাজারে ছাড়ে। সেখান থেকেই টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে। তারপর বিক্রি হচ্ছে খুচরা ও পাইকারি বাজারে। নতুন টাকা বিক্রেতা মোবারক হোসেন বলেন, এবার ব্যবসা মন্দা। প্রতি ১০০ পিস নতুন টাকা ৮০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা বেশি বিক্রি করছি।

সুমন আহমেদ গুলিস্তান থেকে ১০ টাকার ১০০ পিস নতুন নোট কিনেছেন। তিনি বলেন, ঈদে বাড়ি যাব। ছোট ভাই-বোন আছে তাদের নতুন টাকা দিলে অনেক খুশি হবে। তাই এক হাজার টাকা নিলাম। রুবেল মিয়া পাঁচ টাকার ১০০ পিসের এক বান্ডিল কিনেছেন। তিনি বলেন, ছোটদের আবদার মিটাতেই এই নতুন টাকা নিলাম। এই টাকা ছোটদের উৎসাহ-উদ্দীপনা আরো বাড়িয়ে দেয়।

গুলিস্তানের নতুন টাকার ব্যবসায়ী আবদুর রহমান বলেন, দুই, পাঁচ, ও ১০ টাকার নোট বেশি বিক্রি হচ্ছে। নতুন টাকা বিক্রিতে একটা আনন্দ আছে। সেটাই লাভ।

জানা যায়, রোজার ঈদ উপলক্ষে এবার ৩০ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বাজারে ছেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এসব নতুন টাকা বাংলাদেশ ব্যাংকসহ রাজধানীর সরকারি-বেসরকারি ২০টি ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় এ নতুন টাকা পাওয়া যাচ্ছে।

পিডিএসও/তাজ