দুর্নীতির মামলায় আবারও খালাস পেলেন মায়া

প্রকাশ : ০৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৩:২৭ | আপডেট : ০৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৩:৪৯

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা  দুর্নীতির মামলায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার ১৩ বছরের সাজা বাতিল করে খালাস করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ সোমবার আপিলের পুনঃশুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাইকোর্টের গঠিত বেঞ্চ এই রায় দেন।

আদালতে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সাঈদ আহমেদ রাজা। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

এদিকে গত ১৪ আগস্ট মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার দুর্নীতির মামলায় দণ্ডের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিলের ওপর পুনঃশুনানি শেষ হয়েছিল।

এর আগেও ২০১০ সালের ২৭ অক্টোবর আওয়ামী লীগের এ নেতার ১৩ বছরের কারাদণ্ড বাতিল করেছিলেন হাইকোর্ট। পরে দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আপিল বিভাগ এই মামলা পুনঃশুনানির জন্য হাইকোর্টকে নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশ মোতাবেক হাইকোর্টে দীর্ঘদিন শুনানি শেষে আজ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়াকে আবারও খালাস দিয়েছেন হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালের ১৩ জুন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক নূরুল আলম সূত্রাপুর থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় তার বিরুদ্ধে ২৯ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদের মালিক হওয়ার অভিযোগ আনা হয়। ২০০৮ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশেষ জজ আদালত মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়াকে ১৩ বছর কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে জরিমানাও করা হয়।

আপিলের পর ২০১০ সালের ২৭ অক্টোবর আওয়ামী লীগের এ নেতার ১৩ বছরের কারাদণ্ড বাতিল করেছিলেন হাইকোর্ট। এর বিরুদ্ধে দুদকের আবেদনের পর ২০১৫ সালের ১৪ জুন মায়াকে হাইকোর্টের দেওয়া খালাসের রায় বাতিল করেন তৎকালীন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের তিন সদস্যের বেঞ্চ। একইসঙ্গে হাইকোর্টে নতুন করে আপিল শুনানির নির্দেশও দেওয়া হয়। পরে রিভিউও খারিজ করেন আপিল বিভাগ।

পিডিএসও/তাজ