করোনা : আসামে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু

প্রকাশ : ০৬ জুলাই ২০২০, ১৪:৩৩

পার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা

আসামে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে, সতর্ক করেছেন আসামের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। তাই শুনেই আতঙ্কে আসামবাসী।

আনলকের দ্বিতীয় পর্বে দেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। ভয়ের আরেক নাম যে করোনা, তা হারে হারে টের পাচ্ছেন মানুষ। আনলকে ১৪ দিনের কড়া লকডাউন জারি করেও মেলেনি সুফল, শেষ পর্যন্ত গোষ্ঠী সংক্রমণের কথা স্বীকার করেছেন খোদ আসামের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

রোববার এক বৈঠকে আসামের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এবার গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে। এই সঙ্গেই গুয়াহাটি এবার অতিমারির পর্যায়ে প্রবেশ করেছে। এই সংক্রমণ এবার আরও বাড়তে থাকবে। পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

আর সেই কথা শোনার পর থেকেই আতঙ্ক ছড়িয়েছে আসামবাসীর মধ্যে। তবে পরিস্থিতি সামাল দিতে ইতোমধ্যেই আসাম সরকার র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট শুরু করেছে। রোববারই গুয়াহাটিতে একদিনে সর্বাধিক ৭৭৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। রোববার ২৪ ঘণ্টায় আসামে ১২০০-এর বেশি মানুষের রিপোর্ট পজিটিভ মিলেছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কথায়, অন্তত মঙ্গলবার পর্যন্ত এভাবেই রাজ্যে সংক্রমণ বাড়বে। তারপর কিছুটা কমতে পারে। আশা করা হচ্ছে, ৮ অথবা ৯ জুলাই থেকে আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কমবে।

প্রশাসন সূত্রে খবর, আসামে ডাবলিং রেট বেড়েছে। আগে যেখানে ১০ দিনে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছিল, সেটা এখন বেড়ে ১৩ দিন হয়েছে। ফলে আসামের রাজধানী গুয়াহাটিকে নিয়ে প্রশাসনের আধিকারিকদের কপালে দীর্ঘ হচ্ছে চিন্তার ভাঁজ। ২৯ জুন থেকে মারণ ভাইরাসকে রোধ করতে গুয়াহাটিতে ১৪ দিনের কড়া লকডাউন জারি করা হয়েছে। তারমধ্যে কেবল ৪ দিন রাজ্যবাসীকে সামান্য ছাড় দিতে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যে দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়। গত ১০ দিনে গুয়াহাটিতে ২৭০০ জনের শরীরে মিলেছে ভাইরাসের সন্ধান। 

পিডিএসও/হেলাল