মসজিদে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার, ভারতে করোনা বিপদ বাড়ছে

প্রকাশ : ০১ জুন ২০২০, ১৯:৫৭ | আপডেট : ০১ জুন ২০২০, ২০:১১

কলকাতা প্রতিনিধি

বিভিন্ন রাজ্যে যার-যার আস্তানায় ফিরে যাচ্ছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। আসছেন পশ্চিমবঙ্গেও। আর সেই সঙ্গেই বাড়ছে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা। বিভিন্ন জেলায় লাফিয়ে করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যান থেকেই চিত্রটা স্পষ্ট। এই পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখাটাই বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এত সেন্টার কোথায়, এই পরিস্থিতিতে একাধিক স্কুলে করা হচ্ছে শ্রমিকদের জন্যে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার। কিন্তু তাতেও যে কুলোচ্ছে না। এমনই এক সময় এগিয়ে এসেছে নদিয়ার শান্তিপুরের গোপালপুর পুরাতন মসজিদ কমিটি। ওই কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ মহুয়া মৈত্র আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেদন করেছিলেন শ্রমিকদের জন্যেই সকলকেই মানবিক ভাবে এগিয়ে আসার। সেই আহ্বানে সাড়া দিয়েছে গোপালপুর পুরাতন মসজিদ কমিটি। মহারাষ্ট্র থেকে ওই এলাকায় ফিরেছন অনেক পরিযায়ী শ্রমিক।তাদের জন্যেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে মসজিদের একাংশ। বাকি অংশে মসজিদের অন্যান্য কাজকর্ম চলছে।

কেন এমন সিদ্ধান্ত, মসজিদ কমিটির সভাপতির কথায়, মানুষ বাঁচলেই ধর্ম বাঁচবে। এলাকার ছেলেরা পেটের জন্যে অন্য রাজ্যে গিয়েছিল। এখন ফিরে এসেছে। ওদের পাশে তো দাঁড়াতেই হবে। তাই মসজিদের একাংশ ছেড়ে দেওয়া হয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার জন্যে। মসজিদের অন্যান্য কাজে যুক্ত মানুষজনরা এগিয়ে এসেছেন ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের ভালোমন্দ দেখভাল করতেই। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অন্য রাজ্য থেকে আগত পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে ক্ষোভও দেখা দিচ্ছে। বাধা দেওয়া হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গড়তেও। আর সেখানে কিনা ব্যতিক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছে শান্তিপুরের ওই মসজিদ।

এদিকে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এক লক্ষ ৯০ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে। পাশাপাশি বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে ভারত চলে এসেছে নবম থেকে সপ্তম স্থানে। টপকে গিয়েছে জার্মানি ও ফ্রান্সকে।কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন আট হাজার ৩৯২ জন। এই বৃদ্ধির জেরে আক্রান্তের নিরিখে রাজ্যগুলির মধ্যে প্রথম সারিতে রয়েছে মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি ও গুজরাত।দেশে আক্রান্তের সংখ্যা সব থেকে বেশি মহারাষ্ট্রে।