উহানে নিষিদ্ধ হলো সব ধরনের বন্যপ্রাণী খাওয়া

প্রকাশ : ২২ মে ২০২০, ১০:২৩

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রথম কেন্দ্র চীনের উহান শহরে সব ধরনের অবৈধ বন্যপ্রাণী কেনাবেচা, শিকার ও খাওয়া নিষদ্ধ করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার উহান কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ তথ্য জানায়।

যে বন্যপ্রাণীর বাজার থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছিল, সেটা অবশ্য প্রাদুর্ভাবের শুরুতেই গত জানুয়ারিতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সেখানে প্রায় ৩০ প্রজাতির বন্যপ্রাণী বেচাকেনা হতো। খাওয়ার জন্যও অনেকে এসব প্রাণী কিনে নিতেন। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিয়ে কাজ করা সংগঠনগুলো অনেক আগে থেকেই চীনকে এমন বাণিজ্য নিষিদ্ধ করার আহ্বান জানিয়ে এসেছিল। কিন্তু তারা এসব আহ্বানে কর্ণপাত করেনি এতদিন।

খাওয়া নিষিদ্ধ প্রাণীর তালিকায় আছে- যে কোনো ধরনের বন্যপ্রাণী, সংরক্ষণের তালিকায় থাকা জলজ প্রাণী, বন্দি অবস্থায় প্রজনন করে এমন প্রাণী।

গত বছরের শেষের দিকে উহানেই সর্ব প্রথম করোনা ভাইরাসের সূত্রপাত হয়। সে সময় কর্তৃপক্ষ ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হিসেবে বন্যপ্রাণী কেনাবেচা হয় উহানের এমন একটি বাজারের দিকে আঙুল নির্দেশ করেছিল। এর কিছুদিন পর চলতি বছরের জানুয়ারিতে সাময়িকভাবে বন্যপ্রাণী কেনাবেচা নিষিদ্ধ করে চীন। এর আগে সার্স ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লেও বন্যপ্রাণী কেনাবেচা সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করেছিল দেশটি।
 
এদিকে, এতো কিছুর পরও চীনের বিভিন্ন জায়গায় গোপনে বন্যপ্রাণী কেনাবেচা হচ্ছে বলে নানা প্রতিবেদন আসছে। এরই মাঝে উহান কর্তৃপক্ষ বিশেষ ঘোষণা দিয়ে বন্যপ্রাণী ভক্ষণ ও কেনাবেচা নিষিদ্ধ করল। করোনাভাইরাসের মূল উৎস কী, তা এখন পর্যন্ত সুনিশ্চত না হওয়া গেলেও, বিভিন্ন তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে এটি প্রাণীর শরীর থেকে ছড়িয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

যে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ভাইরাস সারা বিশ্বকে ওলট-পালট করে দিচ্ছে, তার আঁতুড়ঘর চীনের উহানের একটি বন্যপ্রাণীর বাজার। এই বন্যপ্রাণী খাওয়ার মাধ্যমেই মানুষের শরীরে ঢুকে পড়েছে করোনাভাইরাস, এমনটা বলা হলেও এটা অবশ্য এখন পর্যন্ত প্রমাণিত নয়। তবে খাওয়ার মাধ্যমে হোক কিংবা অন্য কোনো উপায়ে, উহানের বন্যপ্রাণী থেকেই মানুষের শরীরে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে, এটা সন্দেহাতীতভাবেই প্রমাণিত।

চীনে যখন করোনার প্রাদুর্ভাব তুঙ্গে তখন দেশটিতে বন্যপ্রাণীর বেচাকেনা ও ভক্ষণ নিষিদ্ধ করার জন্য আন্দোলন করেছে সাধারণ মানুষ। বিশেষজ্ঞরাও তাদের সঙ্গে একমত হয়ে সরকারকে এ বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন। অবশেষে দেরি করে হলেও বন্যপ্রাণী বেচাকেনা, ভক্ষণসহ সব ধরনের বাণিজ্যিক ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে উহান কর্তৃপক্ষ।

পিডিএসও/তাজ