বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৭০ হাজার ছাড়াল

প্রকাশ : ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৩৪ | আপডেট : ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৫০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাস মহামারিতে অচল গোটা বিশ্ব। থেমে নেই মৃত্যুর মিছিল, প্রতি মুহূর্তেই বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। হুহু করে বাড়ছে আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা। বিশ্বের অন্তত ১৩১টি দেশে চলছে লকডাউন।

করোনায় প্রাণহানি ও অসুস্থদের পরিসংখ্যান রাখা প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী গতকাল সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত গোটা বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৭০ হাজার ৩৫৬। মোট শনাক্ত রোগী ১২ লাখ ৮৬ হাজার ৪০৯, সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৭০ হাজার ৯৮ জন। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ইউরোপ ও আমেরিকার। বেশির ভাগ মৃত্যু হয়েছে এ দুই মহাদেশে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি ও স্পেনে প্রতিদিন মৃত্যুর নতুন রেকর্ড হচ্ছে। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লাখ ৬২ হাজারের বেশি।

এদিকে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত রোববার নিউইয়র্কে পাঁচজন ও নিউ জার্সিতে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মোট ৭৮ জন বাংলাদেশি প্রাণ হারালেন। এর মধ্যে নিউইয়র্কে ৭৪, নিউজার্সিতে চার ও মিশিগানে এক বাংলাদেশি মারা গেছেন। নিউইয়র্কে করোনায় মৃত্যু এক-একটি পরিবার তছনছ করে দিচ্ছে। যিনি মারা যাচ্ছেন পেছনে ফেলে যাচ্ছেন অসহায় পরিবারকে। আবার কোনো পরিবারের আক্রান্ত হয়ে স্বামী মারা যাচ্ছেন, স্ত্রী আক্রান্ত হচ্ছেন সঙ্গে সন্তানরাও। এমন ঘটনা ঘটেছে জ্যামাইকার একটি পরিবারে।

যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্যানুযায়ী, গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৮৬ হাজার ৪০৯ জনে। আর মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭০ হাজার ৩৫৬। ১৮৩ দেশ ও অঞ্চলে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে। ঠিক ৪৮ ঘণ্টা আগে বিশ্বজুড়ে ১৮১টি দেশে ১১ লাখ ৩১ হাজার ৭১৩ জন ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। আর ওই সময় করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ছিল ৬০ হাজার ১১৫ জন ব্যক্তি। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রস্থল এখনো ইউরোপ। যদিও ধীরে ধীরে সেই কেন্দ্রস্থল হয়ে ওঠছে যুক্তরাষ্ট্র। মৃত মানুষের সংখ্যার দিক থেকে প্রথম দুটি দেশই ইউরোপের। সবার ওপরে আছে ইতালি, গতকাল পর্যন্ত ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১৫ হাজার ৮৮৭ জন। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৮ হাজার ৯৪৮ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন ২১ হাজার ৮১৫ জন।

ইতালির পরই বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে স্পেনে। দেশটিতে মারা গেছেন ১৩ হাজার ৫৫ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৫ হাজার ৩২ জন। দেশটিতে সুস্থ হয়েছেন ৪০ হাজার ৪৩৭ জন। এর পরেই থাকা ফ্রান্সে মৃতের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ৮ হাজার ৯৩ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ৯৩ হাজার ৭৮০ জন। এখন পর্যন্ত দেশটিতে সুস্থ হয়েছেন ১৬ হাজার ৩৫৪ জন।

এছাড়া যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৪৫৩ জন, দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৪ হাজার ৯৪৩ জন। ইউরোপে আক্রান্ত বেশি কিন্তু মৃত্যুর হার কম এমন দেশ হলো জার্মানি। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ১৩২ জন ব্যক্তি আর মারা গেছেন ১ হাজার ৫৮৪ জন। এখন পর্যন্ত ইরানে আক্রান্ত হয়েছেন ৬০ হাজার ৫০০ জন, দেশটিতে মারা গেছেন ৩ হাজার ৭৩৯ জন। আর যে চীনের করোনাভাইরাসে উৎপত্তি সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ৬৮৫ জন, মারা গেছেন ৩ হাজার ৩৩৫ জন। গত ৪৮ ঘণ্টায় চীনে নতুন করে পাঁচজন মারা গেছে। আর নতুন আক্রান্তের হারও দেশটিতে কমে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৩৭ হাজার ৯৩৩ জন ব্যক্তি, দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯ হাজার ৬৩৩ জন। সুস্থ হওয়ার সংখ্যায় সবার ওপরে রয়েছে চীন। গতকাল পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে ২ লাখ ৭০ হাজার ৯৮ জন সুস্থ হয়েছেন। এর মধ্যে চীনে সুস্থ হয়ে ওঠেছেন ৭৭ হাজারেরও বেশি মানুষ। স্পেনে সুস্থ হয়েছেন সাড়ে ৪০ হাজারের বেশি মানুষ।

বিভিন্ন দেশে মৃতের সংখ্যা

ইতালি : ১৫,৮৮৭

স্পেন : ১২,৬৪৪

যুক্তরাষ্ট্র : ৯,৬১৬

ফ্রান্স : ৮,০৭৮

যুক্তরাজ্য : ৪,৯৩৪

ইরান : ৩,৬০৩

চীন : ৩,৩৩১

পিডিএসও/তাজ