দিল্লিতে নতুন পুলিশ কমিশনার, মৃত্যু বেড়ে ৪২

প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:০২ | আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:১৭

পার্থ মুখোপাধ্যায়

দিল্লির হিংসার ঘটনায় সমালোচিত অমূল্য পট্টনায়েককে সরিয়ে দিল্লির নতুন পুলিশ কমিশনার হয়েছেন এসএন শ্রীবাস্তব। তাকে এর আগে দিল্লির হিংসা প্রতিরোধে বিশেষ কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এবার তাকে পুলিশ কমিশনার হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। অমূল্য পট্ট‌নায়েক অবসর নিচ্ছেন শনিবার।

এসএন শ্রীবাস্তব ১৯৮৫ ব্যাচের একজন আধিকারিক। অমূল্য পট্টনায়েকের মেয়াদ এক মাসের জন্য বাড়ানো হয়েছিল। উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে শান্তি ফেরাতে পদক্ষেপ করছে কেন্দ্রীয় সরকার।

এখনও পর্যন্ত ৪২ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে, গুলিবিদ্ধ ৮২। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল বলেছেন, হিংসার সময় দিল্লি পুলিশের প্রতি মানুষের বিশ্বাস ছিল না।এমনকী, দিল্লির পুলিশ কমিশনারের ভাবমূর্তিও খুব ভাল ছিল না, যেকোনও কারণেই হোক। কিন্তু শিগগিরি দিল্লি পেতে চলেছে নতুন পুলিশ কমিশনার। সিআরপিএফ এসএন শ্রীবাস্তবকে নতুন পদে যোগ দেওয়ার জন্য অব্যাহতি দিয়েছে।

এদিকে রোববার থেকে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে কেন্দ্র করে দিল্লিতে শুরু হওয়া হিংসাকে থামাতে দিল্লি পুলিশের সক্রিয়তার অভাবের অভিযোগ তুলেছেন দিল্লির বাসিন্দারা এবং রাজনৈতিক নেতারা। এই পরিস্থিতিতে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে পট্টনায়েককে। সিএএ-র সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষে যখন ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে উত্তর-পূর্ব দিল্লি, সেই পরিস্থিতিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় বহু মানুষ অভিযোগ জানিয়েছিলেন কোথাওই পর্যাপ্ত পুলিশ ছিল না।

এদিকে পাকিস্তান এবং বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী সম্পর্কে খবর দিলেই মিলবে ৫ হাজার টাকা পুরস্কার। এমনই পোস্টারে ছেয়ে গিয়েছে মহারাষ্ট্রের অওরঙ্গাবাদের রাস্তা।মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার এই পোস্টার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। রাজ ঠাকরের নেতৃত্বাধীন মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার এই পোস্টারে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান থেকে আসা বেআইনি অনুপ্রবেশকারীদের সম্পর্কে খবর দিতে পারলেই ৫ হাজার টাকা পুরস্কার পাওয়া যাবে।

সম্প্রতি মারাঠি মানুষ-এর লাইন থেকে হিন্দুত্বে ফিরেছেন নবনির্মাণ সেনা নেতা রাজ ঠাকরে।কেন্দ্রীয় সরকারের নাগরিকত্ব আইনেরও জোরদার সমর্থক রাজ ঠাকরে। অওরঙ্গাবাদে নিজেদের জমি শক্ত করার চেষ্টা করছে এমএনএস।এই মাসের প্রথম দিকে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে আসা অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের বের করার দাবি নিয়ে মুম্বইতে একটি মিছিল করেন রাজ।

পুনেতেও অনুপ্রবেশকারীদের সরানোর দাবি তুলেছে এমএনএস। ২০১৪ থেকেই খারাপ সময় যাচ্ছে এমএনএস-এর। এই অবস্থায় হিন্দুত্ব ইস্যুকে আঁকড়ে পায়ের তলার মাটি পেতে চাইছে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা।

অন্যদিকে দিল্লি হিংসার ঘটনা নিয়ে নতুন করে দায়ের হওয়া আরও তিনটি পিটিশনের শুনানি হয়েছে দিল্লি হাইকোর্টে। ওই মামলায় দিল্লি পুলিশ, দিল্লি সরকার ও কেন্দ্রকে নোটিশ পাঠিয়েছে আদালত। নয়া পিটিশনের একটিতে বিরোধী নেতা রাহুল এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ও আসাদুদ্দিন ওয়াইসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানানো হয়েছে।নাগরিকত্ব আইনের বিরোধীদের পরিচয় জানার জন্য তদন্তের আর্জিতে যে পিটিশন দাখিল করা হয়েছে, সেই মামলাতেও নোটিশ পাঠিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট।

পিডিএসও/হেলাল