সাধু বাবার নতুন রাষ্ট্র!

প্রকাশ : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৫:১৫

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

ধর্ষণ, অপহরণ ও আশ্রমে আটকে রাখার মামলায় পলাতক ভারতের স্বঘোষিত এক হিন্দু অবতার একটি নতুন ‘রাষ্ট্র’ প্রতিষ্ঠা করেছেন বলে খবর এসেছে, যার নিজস্ব পতাকা, সংবিধান ও জাতীয় প্রতীক রয়েছে।

ভারতের সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, নিত্যানন্দের নামে এই ব্যক্তির প্রতিষ্ঠিত ‘সার্বভৌম হিন্দু রাষ্ট্রে’র প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিপরিষদও আছে বলে কৈলাশ নামে একটি ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে। কৈলাশ নামে এই দেশের এই ‘মহত্তম হিন্দু রাষ্ট্রের’ জন্য অনুদান চাওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে দেশটির নাগরিকত্ব মিলবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সাইবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এক বছর আগে তৈরি ওয়েবসাইটটি পানামায় নিবন্ধিত, যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে এর আইপি লোকেশন শনাক্ত হয়েছে।

‘তথাকথিত’ দেশটির অবস্থান সম্পর্কে কোনো ইঙ্গিত দেওয়া না হলেও এতে বলা হয়েছে, কৈলাশ একটি সীমানাবিহীন দেশ। এর নাগরিক সারা বিশ্বের বঞ্চিত হিন্দুরা, যারা নিজ দেশে খাঁটি উপায়ে হিন্দু ধর্ম পালনের অধিকার হারিয়েছেন।

তবে অসমর্থিত সূত্রে বিজনেস টুডের খবরে বলা হয়েছে, ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর কাছে দক্ষিণ আমেরিকার পশ্চিম উপকূলের দেশ ইকুয়েডরের কাছ থেকে জমি কিনে নিত্যানন্দ এ রাষ্ট্র গড়েছেন।

নিত্যানন্দ নেপাল হয়ে ইকুয়েডরে পালিয়েছে বলে এর আগে ইন্ডিয়া টুডে খবর দিয়েছে। নিত্যানন্দের ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, এই হিন্দু রাষ্ট্রের নিজস্ব পতাকার নাম ‘ঋষভ ধ্বজা’ যাতে নিত্যানন্দের নিজের ও হিন্দু দেবতা শিবের বাহন ‘নন্দী’র ছবি রয়েছে।

ওয়েবসাইটে আরো উল্লেখ করা হয়, কৈলাশে শিক্ষা, রাজস্ব ও বাণিজ্যসহ সরকারি নানা বিভাগ আছে। সনাতন ধর্মকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য রয়েছে ‘ডিপার্টমেন্ট অব এনলাইটেনড সিভিলাইজেশন’ নামের একটি আলাদা বিভাগ। তথাকথিত এই দেশে ‘ধার্মিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থায়’ হিন্দু ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড রিজার্ভ ব্যাংক আছে বলে দাবি করা হয়েছে, যেখাকে ক্রিপ্টোকারেন্সি চলে।

স্বামী নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে কর্ণাটক রাজ্যে একটি ধর্ষণের মামলা রয়েছে। পাশাপাশি তার আহমেদাবাদের আশ্রমে শিশুদের আটকে রেখে জোর করে টাকা সংগ্রহের কাজে লাগানোর অভিযোগে মামলা হয়েছে। নিত্যানন্দের দুই শিষ্যকে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

পিডিএসও/তাজ