কাশ্মীরে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে রোবট

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৪২

পার্থ মুখোপাধ্যায়

কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলায় বিশেষ ধরনের রোবট হাতে পেতে চলেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। জঙ্গিদের যেকোনো প্রতিরোধ ভেঙে সামনে এগিয়ে যাবে লড়াকু এই রোবট। গ্রেনেড ছুড়ে বা অন্য কোনোভাবে দমানো যাবে না এই রোবটকে। শুধু প্রতিরোধ ভাঙাই নয়, তল্লাশি অভিযানেও পটু এই যন্ত্রমানব।

জম্মু-কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদবিরোধী অভিযান জোরদার করতে ভারতীয় সেনার হাতে খুব শিগগির এই রোবট তুলে দেওয়া হবে। খবর, প্রথম পর্যায়ে জম্মু-কাশ্মীরের জন্য ৫৫০ রোবোটিকস নজরদারি ইউনিট কেনার প্রক্রিয়া শুরু করেছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। দাবি, কমপক্ষে ২৫ বছর কর্মক্ষম থাকবে এই রোবটগুলি।

রোবটের দক্ষতার কথা বলতে গিয়ে ভারতীয় সেনার এক ঊর্ধ্বতন কর্তা জানিয়েছেন, বিশেষ ধরনের এই রোবট সিঁড়ি ভাঙতে পারে। ঢুকে পড়তে পারবে জঙ্গিঘাঁটিতে। গ্রেনেড ছুড়ে বিরত করা যাবে না। চলার পথে ২০ সেমি গভীর জলের বাধা থাকলেও অনায়াসে তা পেরিয়ে চলে যাবে। কাশ্মীরে জঙ্গি অনুসন্ধানে তল্লাশি চালাতে এই ধরনের রোবট কাজে লাগান হবে। এই রোবটকে ফার্স্ট লাইন অফ ডিফেন্স হিসেবে উল্লেখ করা হচ্ছে। কারণ, এতে সেনার প্রাণহানির ঝুঁকি কম।

জানা গেছে গোয়েন্দাগিরিও করবে এই রোবট। বসতি ও বাণিজ্যিক এলাকায় নজরদারি চালিয়ে সেনাকে তথ্য পাঠিয়ে সাহায্য করবে। ছবিও দেবে। সেই ইনপুটের উপর ভিত্তি করেই প্ল্যান করবে দেশের প্রধান প্রতিরক্ষা বাহিনী, রাষ্ট্রীয় রাইফেল। ১৯৯০ সালে এমন রোবটের প্রয়োজন অনুভব করেছিলেন রাষ্ট্রীয় রাইফেলের ডিরেক্টরেট জেনারেল।

পিডিএসও/হেলাল