আলোচনায় মোদি-শি জিনপিং

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ১৩:৩৩

পার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং তাজ ফিশারম্যানের কভ রিসর্টে প্রতিনিধিদের নিয়ে মুখোমুখি বৈঠকে আলোচনা করছেন।

বাণিজ্য, নিরাপত্তা, সন্ত্রাস দমন-সহ একাধিক ইস্যু নিয়ে আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কাশ্মীর প্রসঙ্গও উঠে আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে তা হবে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের হাত ধরেই। কারণ, কাশ্মীর সমস্যা অভ্যন্তরীণ বিষয় হওয়ায় জিনপিংয়ের সঙ্গে আলোচনায় যেতে চায় না ভারত।

শুক্রবার রাতে বিদেশ সচিব বিজয় গোখলে জানিয়েছেন,প্রায় ১৫০ মিনিট একান্তে আলাপচারিতা করেছেন দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধান। খোলামেলা এবং বন্ধুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজুবতে এই সাক্ষাৎ পর্ব ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দক্ষিণী ধুতি ও সাদা জামা পরে চীনা প্রেসিডেন্টের সামনে উপস্থিত হন নরেন্দ্র মোদি।জিনপিংয়ের কাছে ভারতের সংস্কৃতি তুলে ধরায় কোনো কমতি রাখা হয়নি।

মমল্লমপুরমে অর্জুন তপস্যার ভাস্কর্য, কৃষ্ণের মাখন বল, পঞ্চ রথ এবং শোর মন্দির ঘুরিয়ে দেখান মোদি। শুক্রবার রাতে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এবং তার প্রতিনিধিদের সামনে পরিবেশন করা হয় ভারতনট্টম, রামায়ণ। বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার জানিয়েছেন, মোদি-জিনপিংয়ের ঘরোয়া আলোচনার প্রথম দিন দারুণভাবে সফল হয়েছে।

অন্যদিকে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালের সঙ্গে কথা হয়েছে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির দুই শীর্ষ নেতা ইয়াং জিয়েচি এবং ওয়াং ইয়ের। কূটনৈতিক মহলের মতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে কাশ্মীর-লাদাখে ৩৭০ ধারা রদের কথা তুলবেনই প্রেসিডেন্ট জিনপিং। কিন্তু ভারতের লক্ষ্য হলো, দুই রাষ্ট্রপ্রধানের আলোচনার বিষয়বস্তুকে কাশ্মীর-লাদাখের বাইরেও নিয়ে যাওয়া। চীনের ওয়ান বেল্ট ওয়ান রোড, পাক-অধিকৃত কাশ্মীরের ওপর দিয়ে যাওয়ায়, ভারতের আপত্তির কথা জিনপিংকে জানাতে পারেন প্রধানমন্ত্রী মোদি।

একইসঙ্গে বাংলাদেশ-চীন-ভারত-মায়ানমার করিডরের কাজে গতি আনার জন্য চাপ দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোধি। পাকিস্তান কীভাবে ভারত-বিরোধী জঙ্গি গোষ্ঠীগুলিকে প্রশ্রয় দিয়ে যাচ্ছে তাও প্রেসিডেন্ট জিনপিংকে ফের জানাবেন প্রধানমন্ত্রী মোধি। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় সমস্যা, বাণিজ্য ঘাটতি ও আমেরিকা-চিন শুল্কযুদ্ধ নিয়েও দুই নেতার কথা হওয়ার সম্ভাবনা।

২০১৪ সালে মোদি ক্ষমতায় আসার পরই গুজরাটের সবরমতীর পাড়ে দোলনায় চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। সতেরোর জুনে তাল কাটে ডোকালামে।পরের বছর উহানে দুই নেতার বৈঠকের পর পরিস্থিতি সহজ হয়। প্রধানমন্ত্রী মোদি ফের ক্ষমতায় আসার পর আবার ভারতে চীনা প্রেসিডেন্ট। এবার পল্লব রাজাদের শহর, ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট তামিলনাড়ুর মমল্লপুরমে। 

পিডিএসও/তাজ