সালোয়ার কামিজ পরিয়ে কাশ্মীরি ছাত্রকে মার

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:৫৫

পার্থ মুখোপাধ্যায়

আলওয়ারে কাশ্মীরি এক ছাত্রকে সালোয়ার কামিজ পরিয়ে শারীরিক নিগ্রহের ঘটনায় অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের নামে এফআইআর দায়ের করল রাজস্থান পুলিশ। আক্রান্ত ওই যুবকের নাম মীর ফাইদ, বাড়ি কাশ্মীরের সোপোরে। 

আলওয়ারের অতিরিক্ত পুলিশসুপার তেজপাল সিং জানিয়েছেন, নীমরানার এক বেসরকারি কলেজের এরোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্র ফাইদ। লিখিত অভিযোগে ওই ছাত্র জানিয়েছেন, রাতে কলেজ থেকে বেরিয়ে হোস্টলে ফিরছিলেন। মাঝরাস্তায় তার পথ আটকায় অজ্ঞাতপরিচয় দুই ব্যক্তি। মীর ফাইদের অভিযোগ, তারা তাকে মারধরের ভয় দেখিয়ে জোর করে সালোয়ার কামিজ পরতে বাধ্য করে। সেই অবস্থায় এটিএম ঢুকলে লোকজন সেখানে জড়ো হয়ে যায়। মীর ফাইদকে এটিএম থেকে বেরে করে মারধর করা হয়।

ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, কয়েকজন ওই কাশ্মীরি যুবককে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে মারধর করছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিয়ো ছড়িয়েও পড়ে। তবে, অপ্রীতিকর কিছু ঘটার আগে, উন্মত্ত জনতার হাত থেকে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। 

আলওয়ার পুলিশ সূত্রে খবর, মামলা রুজু হয়েছে, তবে এখনো কেউ গ্রেফতার হয়নি। এই আলওয়ারেই দুবছর আগে ২০১৭ সালের ১ এপ্রিল পিটিয়ে খুন করা হয়েছিল পেহলু খানকে। চাঞ্চল্যকর সেই মামলায় যদিও ৬ অভিযুক্তই আদালতে বেকসুর খালাস পেয়ে গিয়েছে। রাজস্থানের দিল্লি-আলওয়ার হাইওয়ের উপর বেহরোর কাছে স্বঘোষিত গোরক্ষকদের হাতে আক্রান্ত হয়েছিলেন পেহলু খান। হরিয়ানার নুহর বাসিন্দা পেহলুকে ওই দিন নৃশংসভাবে পেটানো হয়। ঘটনার দুদিন পর একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় হরিয়ানার পেহলু খানের।

পিডিএসও/হেলাল