পালিত হলো পবিত্র হজ

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৯, ২১:১০

অনলাইন ডেস্ক

পবিত্র মক্কা নগরীর অদূরে আরাফাতের উন্মুক্ত প্রান্তরে অবস্থান করে অশ্রুভেজা নয়নে মহান আল্লাহর কাছে পাপমুক্তির প্রার্থনা ও আত্মশুদ্ধির অঙ্গীকারের মাধ্যমে শনিবার পবিত্র হজ পালন করেছেন সারাবিশ্ব থেকে আগত প্রায় ত্রিশ লাখ মুসলমান।

দুপুরে সূর্য পশ্চিমাকাশে হেলে পড়ার পর আরাফাতের ময়দান সংলগ্ন মসজিদে নামিরা থেকে হজের খুতবা দেওয়া শুরু করেন সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ওলামা পরিষদ এবং গবেষণা-মুফতি বোর্ডের সদস্য শায়খ মুহাম্মদ বিন হাসান আলে আশ-শায়খ।

পবিত্র হজের খুতবায় মুসলিম উম্মাহর শান্তি, ঐক্য ও সমৃদ্ধির ওপর জোর দিয়েছেন খতিব। দীর্ঘ লিখিত খুতবায় তিনি সঠিক ইসলামের পথে মুসলিমদের ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। মুসলিম উম্মাহর ঐক্য ও সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়াও করেছেন। 

খুতবা সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ও বিশ্বের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি টেলিভিশন সরাসরি সম্প্রচার করে। অনেক হজ এজেন্সি নিজ উদ্যোগে আরাফার ময়দানে উপস্থিত হাজীদেরকে খুতবার অনুবাদ শোনানোর ব্যবস্থা নিয়েছেন।

হজের খুতবা সমাপ্ত হবার পর ইমামের পেছনে পরপর জোহর ও আসরের নামাজ জোহরের ওয়াক্তে আদায়ের পর সূর্যাস্তের পূর্ব পর্যন্ত আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করেন হাজিরা।

আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের মেহমানরা শনিবার সূর্যোদয়ের পর মিনা থেকে কেউ গাড়িতে, কেউ পায়ে হেঁটে আরাফাতের ময়দানের দিকে রওনা হন। আরাফাত ময়দানে অবস্থান করা হজের অন্যতম ‘ফরজ’ বা অবশ্য পালনীয়। মূলত ৯ জিলহজ আরাফাতে অবস্থান করার দিনকেই হজের দিন বলা হয়। জনশ্রুতি আছে যে, হযরত আদম (আ.) ও বিবি হাওয়া (আ.) দীর্ঘদিন কান্নাকাটির পর এখানেই এসে মিলিত হয়েছিলেন। হাজিরা আরাফাত ময়দানে অবস্থান শেষে তাদের গন্তব্য মুযদালিফা। সেখানে গিয়ে মাগরিব ও এশার নামাজ এশার ওয়াক্তে একত্রে পড়বেন এবং সমস্ত রাত অবস্থান করবেন।

পিডিএসও/হেলাল