কংগ্রেসের সভানেত্রী হোন মমতা : স্বামী

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৯, ১২:২৭

পার্থ মুখোপাধ্যায়

কংগ্রেসের দ্বায়িত্ব নিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দেশের গণতন্ত্র বাঁচাতে এমন দাওয়াই দিয়েছেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তার দাবি, বিজেপির একচেটিয়া রাজত্ব চললে ,বিপন্ন হবে দেশের গণতন্ত্র। এই অবস্থায় ইউনাইটেড কংগ্রেসের সভানেত্রী হোন মমতা।   

সোশ্যাল মিডিয়ায় সুব্রহ্মণ্যম স্বামী লিখেছেন, গোয়া ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি দেখার পর তার মনে হচ্ছে, দেশে একটাই দল বিজেপি থাকলে বিপন্ন হবে দেশের গণতন্ত্র। সে ক্ষেত্রে সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর বক্তব্য, ইতালিয়ান ও পরিবারের লোকেরা বিদায় নিন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সংযুক্ত কংগ্রেসের সভানেত্রী করা হোক। কংগ্রেসের সঙ্গে মিশে যাওয়া উচিত এনসিপি-রও।

সম্প্রতি, গোয়াতে ১০ কংগ্রেস বিধায়ক দল ছেড়ে যোগ দিয়েছেন বিজেপি-তে। কর্ণাটকেও টলমল অবস্থায় কংগ্রেস। সেই দিকে তাকিয়েই বিরোধী রাজনীতি টিকিয়ে রাখতে এমন পরামর্শ দিয়েছেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। রাহুল গান্ধী লোকসভা ভোটে হারের দায় স্বীকার করে ইতিমধ্যেই সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন।

অন্যদিকে, লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে খারাপ ফল করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। একই অবস্থা এনসিপির। শরদ পাওয়ারের দলেরও ভরাডুবি হয়েছে। বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বলতে চেয়েছেন, কংগ্রেসের নেতৃত্বের অভাব প্রকট। আবার, কংগ্রেস ভেঙে গঠিত তৃণমূল ও এনসিপিও বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। এই অবস্থায় সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর প্রস্তাব, কংগ্রেসের সঙ্গে মিশে যাক এনসিপি ও তৃণমূল। ইউনাইটেড কংগ্রেসকে নেতৃত্ব দিন মমতা।

উল্লেখ্য, লোকসভা ভোটের পর শরদ পাওয়ার,রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন। জল্পনা ছিল, এনসিপিকে কংগ্রেসের সঙ্গে মিশিয়ে দিতে চান শরদ। অন্যদিকে, এর আগেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসা করেছেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী।

তবে, তৃণমূল  সুপ্রিমোর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও হুমকি দিয়েছিলেন। তারকেশ্বরের মন্দিরের পরিচালন বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে ফিরহাদ হাকিমের নিয়োগ নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তারকেশ্বরের মন্দিরের পরিচালন বোর্ডের চেয়ারম্যানের পদ থেকে ফিরহাদ হাকিমকে অপসারিত না করা হলে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর বিরূদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়ে ছিলেন।

পিডিএসও/তাজ