সংসদে বিজেপির ভোটে জিতল তৃণমূল!

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৯, ১৯:৫৮

পার্থ মুখোপাধ্যায়

সংসদের উচ্চকক্ষ  রাজ্যসভায় ই এস আই বোর্ডের সদস্য নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থীকে ভোট দিয়েছে , ঘোষিত রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ, বিজেপি। বিজেপির ভোটে প্রথমবার এই কমিটির সদস্য নির্বাচিত হলেন তৃণমূল কংগ্রেসের দোলা সেন। রাজ্যসভায় ছিল ই এস আই কমিটির সদস্য নির্বাচন। এতদিন এই পদে ঐক্যমতের ভিত্তিতে সদস্যপদ নিয়োগ দস্তুর ছিল। আসনটি বরাদ্দ করা হয় সংসদের বিরোধীদের জন্য।

এতদিন, ওই আসনে ছিলেন তৃণমূল সাংসদ, রাজ্যসভা সাংসদ দেবব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়। তার মেয়াদ ফুরানোর পর সেটিতে নির্বাচন করানোর  দায়িত্ব সংসদীয় কার্য মন্ত্রক। এতদিন তাদের দখলে থাকায় আসনটির দাবিদার ছিল তৃণমূল কংগ্রেস।

কিন্তু সংসদে বোঝাপড়া বাড়াতে আসনটি সিপিএমকে ছেড়ে দিতে চেয়েছিল তারা। কিন্তু তাতেও ওই আসনে জয় নিশ্চিত ছিল না। সেজন্য দরকার ছিল, কংগ্রেসের ভোট। কংগ্রেস আবার ,সিপিএমকে সমর্থন দিতে বেঁকে বসে। ফলে শেষ মুহূর্তে লড়াইয়ের ময়দানে নামে তৃণমূল কংগ্রেস। 

ই এস আই  বোর্ডের সদস্য নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস  প্রার্থী হয়েছিলেন দোলা সেন। কংগ্রেস দাঁড় করায় প্রদীপ ভট্টাচার্যকে। সিপিএম প্রার্থী করে ,আরম ভোটাভুটির শেষে দেখা যায়, ৯০ ভোট পেয়ে জিতেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের দোলা সেন। প্রদীপ ভট্টাচার্য পেয়েছেন ৪৬টি ভোট। সিপিএম প্রার্থী পেয়েছেন মাত্র ৮টি ভোট।

হিসাব বলছে, বিজেপির অন্তত ২০টি ভোট পেয়েছেন দোলা। বৃহস্পতিবার এই নিয়ে মুখ খুলেছেন বিজেপির মুকুল রায়। কলকাতায় , বিধাননগরের বিদ্রোহী মেয়র সব্যসাচী দত্তর বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে তিনি দাবি করেছেন, দোলা সেনকে জেতানোর জন্য বিজেপিকে আবেদন জানিয়েছিলেন খোদ তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ওদিকে বিজেপির ভোট তৃণমূল পাওয়ায় ফের একবার দু'দলের গোপন আঁতাতের অভিযোগ তুলেছে বাম ও কংগ্রেস, উভয় দল। তবে অনেকে বলছেন, এক্ষেত্রে বিজেপির কাছে বিকল্প ছিল না।কংগ্রেসকে ভোট দেওয়া বিজেপির পক্ষে সম্ভব নয়। সিপিএমের ক্ষেত্রেও তাদের একই অবস্থান। সেক্ষেত্রে বাকি ছিল তৃণমূল কংগ্রেস, তবে ভোটদানে বিরত থাকতে পারত বিজেপি। সেক্ষেত্রে কংগ্রেস প্রার্থীর জয় নিশ্চিত ছিল। সেই সম্ভাবনা রুখতেই সরাসরি তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিয়েছে বিজেপি। 

পিডিএসও/তাজ