কনস্যুলেটে খাশোগির ‍খুনের কথা স্বীকার করলো সৌদি

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:২৬ | আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০১৮, ১২:২৫

অনলাইন ডেস্ক

সব জল্পনা-কল্পনা শেষে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে একটি সংঘর্ষের ঘটনায় সাংবাদিক জামাল খাশোগি নিহত হয়েছেন বলে স্বীকার করে নিল সৌদি আরব।

দেশটির রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনে জানা গেছে, ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে বেশ কয়েক জনের সঙ্গে লড়াইয়ের ঘটনায় জামাল খাশোগি নিহত হন।

ওই খবরে বলা হয়েছে, খাশোগি নিহত হওয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে সৌদির উপ-গোয়েন্দা প্রধান আহমাদ আল-আসিরি এবং ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন সালমানের শীর্ষ সহকারী সৌদ আল কাহতানিকে তাদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এছাড়া খাশোগি হত্যাকাণ্ডে তদন্তের অংশ হিসেবে ১৮ জন সৌদি নাগরিককে আটক করা হয়েছে।

প্রথমবারের মতো প্রাথমিক তদন্তে জামাল খাশোগি নিহত হয়েছেন বলে স্বীকার করে নিল সৌদি। এই ঘটনার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলছেন, যা ঘটেছে তা গ্রহণযোগ্য নয়। তবে সৌদি আরব তাদের গুরুত্বপূর্ণ মিত্র দেশ।

একটি গোল টেবিল বৈঠকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, ওই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করাটাই ছিল প্রথম গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। সৌদি রাজতন্ত্র দ্রুত এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করায় তিনি দেশটির প্রশংসা করেছেন।

এদিকে, বাদশাহ সালমান দেশটির গোয়েন্দা বিভাগকে ঢেলে সাজাতে ক্রাউন প্রিন্স সালমানের নেতৃত্বে একটি মন্ত্রিপরিষদীয় কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছায় নির্বাসনে থাকা এ সাংবাদিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা প্রথম থেকে সৌদি আরব অস্বীকার করলেও তুরস্কের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা বলছেন, আমাদের হাতে থাকা অডিও বার্তা ইঙ্গিত করে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটেই খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যার বিষয়ে তদন্ত নতুন মোড় নেয়।

এর আগে ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন রাজপরিবারের কট্টর সমালোচক ও সাংবাদিক জামাল খাশোগি। কনস্যুলেটে প্রবেশের পর খাশোগিকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর বের হয়েছিলো।

ওই ঘটনার পরপরই তুরস্কের তরফ থেকে দাবি করা হয় যে, কনস্যুলেটের ভেতরেই জামাল খাশোগিকে টুকরো টুকরো করে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু তুরস্কের এই দাবি উড়িয়ে দিয়ে সব ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছিল রিয়াদ।

পিডিএসও/তাজ