ইউএস-বাংলা বিমান দুর্ঘটনা

‘কাঠমান্ডু পোস্টের প্রতিবেদন প্রতারণামূলক’

দাবি নেপালী তদন্তকারীদের

প্রকাশ : ২৮ আগস্ট ২০১৮, ১৪:০৩

অনলাইন ডেস্ক

নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা বিমান দুর্ঘটনা নিয়ে কাঠমান্ডু পোস্ট যে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সেটিকে ‘অনৈতিক ও প্রতারণামূলক’ বলে বর্ণনা করেছেন দেশটির একসিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন কমিশনের (এআইসি) তদন্তকারীরা। এক বিবৃতিতে এমনটা বলেছেন তারা। 

কাঠমান্ডু পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিমান দুর্ঘটনাটি নিয়ে নেপাল সরকার যে তদন্ত চালিয়েছে তার প্রতিবেদন তাদের হাতে এসেছে। ওই প্রতিবেদনকে উদ্ধৃত করে কাঠমান্ডু পোস্ট দাবি করে, দুর্ঘটনার জন্য বিমানের পাইলট দায়ী ছিলেন। কাঠমান্ডু পোস্ট আরো লিখেছে, অবতরণের সময়  কনট্রোল টাওয়ারের কাছে মিথ্যা বলেছিলেন পাইলট এবং পুরো এক ঘণ্টার যাত্রায় ককপিটে বসে তিনি ক্রমাগত ধূমপান করেছিলেন।

নেপাল সরকার পরিচালিত তদন্তের বরাত দিয়ে দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে প্রতিবেদনে বলা হয়, পাইলট আবিদ সুলতান প্রচণ্ড রকম ব্যক্তিগত মানসিক চাপে ছিলেন। এ কারণেই তার নেয়া বেশ কয়েকটি ভুল সিদ্ধান্তে বিমানটি অবতরণের মুহূর্তে বিধ্বস্ত হয়। 

এদিকে, কাঠমুন্ডু পোস্টের প্রতিবেদনের জবাবে এআইসি এক বিবৃতিতে বলেছে, দুর্ঘটনার কারণ খুঁজে বের করতে তাদের তদন্ত এখনো চলমান। বিবৃতিতে বলা হয়, এআইসির তদন্তের একমাত্র উদ্দেশ্য হচ্ছে দুর্ঘটনাটির সম্ভাব্য কারণ খুঁজে বের করা ও অদূর ভবিষ্যতে এরকম দুর্ঘটনা এড়ানো। কমিশন বিশ্বাস করে, দুর্ঘটনার তদন্ত গণমাধ্যমের প্রোপাগান্ডার বিষয় নয়। কমিশন আরো জানায়, এই ধরণের অনৈতিক ও প্রতারণামূলক প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে তাদের তীব্র আপত্তি রয়েছে। কেননা, এসব প্রতিবেদন জনগণের মধ্যে ভুল ধারণা এবং বিশ্বাস ছড়িয়ে দিতে পারে। 

কাঠমান্ডু পোস্টের প্রতিবেদনের তীব্র সমালোচনা করে কমিশন বলেছে, ঘটনাটি নিয়ে কমিশন এখনো তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে ও আলোচনা করছে। এমতাবস্থায় এরকম স্পর্শকাতর ইস্যুতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে সত্যতা যাচাই না করে খবর প্রকাশ করা খুবই লজ্জার বিষয়।

পিডিএসও/হেলাল