ঢাবিসহ ৪ বিশ্ববিদ্যালয়ে হবে করোনা পরীক্ষা

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৫৬

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের চারটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনাভাইরাস শনাক্তরণের পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে যাচ্ছে সরকার। এগুলো হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি), চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ডি এনিমেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি) এবং সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে করোনাভাইরাস শনাক্তকরণের প্রয়োজনীয় অবকাঠামো যাচাই করে সেখানে পরীক্ষা চালুর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আদেশ জারি করেছে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগ। এদিকে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গত শনিবার রাতে করোনা পরীক্ষায় সম্মতি দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

জানা গেছে, দেশের ১১টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে রিয়েল টাইম পিসিআর মেশিন রয়েছে বলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে অবগত করার পর আপাতত চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য এ উদ্যোগ নেওয়া হয়।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন গতকাল রোববার গণমাধ্যমকে বলেন, এসব বিশ্ববিদ্যালয় এই মুহূর্তে করোনাভাইরাসের রোগী শনাক্তকরণের কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ডিমান্ড বাড়লে বাকি সাতটি বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে রিয়েল টাইম পিসিআর মেশিন রয়েছে, সেখানেও করোনাভাইরাসের রোগী শনাক্তকরণের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এদিকে যশোর প্রতিনিধি জানান, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। গত শনিবার রাতে স্বাস্থ্য অধিদফতর পরীক্ষায় করতে সম্মতি দিয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন যবিপ্রবি উপাচার্য ড. আনোয়ার হোসেন। হাসপাতালের বাইরে দেশের কোনো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রথম করোনাভাইরাস পরীক্ষার সরকারি অনুমতি পেল।

এ ব্যাপারে মোবাইল ফোনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের কোভিড-১৯ টেকনিক্যাল কমিটি ল্যাবরেটরি ইনভেস্টিগেশনের সভাপতি ও অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানিয়েছেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে করোনা পরীক্ষার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। দ্রুত সেখানে নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হবে।

উপাচার্য ড. আনোয়ার হোসেন জানান, যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে ২০১৯ সালে সংগ্রহ করা বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির পিসিআর মেশিন রয়েছে। একসঙ্গে এখানে ৯৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের চার শিক্ষক করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করবেন।

তাছাড়াও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দুজন শিক্ষক এই ল্যাবে কাজ করার আগ্রহ ব্যক্ত করেছেন। তাদেরও প্রশিক্ষিত করে ল্যাবে যুক্ত করা হবে। উপাচার্য জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত থাকাকালে ২০১১ সাল থেকে তিনি করোনার আরএমএন ভাইরাস পরীক্ষা শুরু করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ল্যাবেও একসঙ্গে ৩৮টি নমুনা পরীক্ষা সম্ভব।

ড. আনোয়ার জানান, যবিপ্রবির ল্যাবটি ইতোমধ্যে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ও যশোরের সিভিল সার্জন পরিদর্শন করেছেন। গত শনিবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং শিক্ষা সচিবের সঙ্গেও তার কথা হয়েছে। আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরার সঙ্গেও এ নিয়ে তার কথা হয়েছে।

পিডিএসও/তাজ