মস্তিষ্ক বিকল করা নতুন মশা!

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৩০ | আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:২৩

অনলাইন ডেস্ক

মশার কামড়ে ম্যালেরিয়া রোগ ছড়াত, চিকুনগুনিয়া কিংবা ডেঙ্গু জ্বরের কারণে মৃত্যুর ঘটনা অহরহ ঘটছে। চলতি বছর ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় জনমনে রয়েছে আতঙ্ক। এখনো অনেকেই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এরই মধ্যে জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় নতুন প্রজাতির মশার সন্ধান পাওয়া গেছে। গত ২৫ জুলাই ফ্লোরিডার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, বিরল এক ধরনের মশাবাহিত রোগের কথা। ওই ভাইরাসের নাম ইস্টার্ন ইকুইন এনসেফালাইটিস বা ইই্ই ভাইরাস। প্রথমে এটা ধরা পড়ে মুরগির শরীরে। এরপর সেগুলো মশার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

চলতি বছর এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে কেবল সাতজন ওই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এটা আরো বিশদভাবে ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়েছে। ইইই ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হলে ধীরে ধীরে মস্তিষ্ক বিকল হতে থাকে। এমনকি সম্পূর্ণ স্মৃতিশক্তি নষ্ট হয়ে যেতে পারে আক্রান্ত ব্যক্তির। যারা আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন তারাও বিকলাঙ্গ হয়ে পড়েছেন।

চিকিৎসকরা বলছেন, এ রোগ থেকে যারা আরোগ্য লাভ করেছেন তাদের অনেকেই গুরুতর বুদ্ধিগত দুর্বলতা, ব্যক্তিগত তথ্য ভুলে যাওয়া, খিঁচুনি, পক্ষাঘাত এবং মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা অনেকাংশে হারিয়ে ফেলেছেন।

মশার কামড়ের চার থেকে ১০ দিনের মধ্যে রোগের লক্ষণ দেখা দেয়। শুরুতে মাথাব্যথা, জ্বর, ঠান্ডা লাগা, বমি বমি ভাব থাকলেও হার্ট অ্যাটাক কিংবা কোমায় চলে যাওয়ার ঘটনা ঘটতে পারে। এখন পর্যন্ত এ রোগের কোনো ধরনের ভ্যাকসিন কিংবা ওষুধ আবিষ্কার হয়নি।

সে কারণে বিশেষজ্ঞরা নিরাপদ থাকার কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। বাড়ির পাশের নালা ও ফুলের টব পরিষ্কার রাখার কথা বলছেন তারা। সেই সঙ্গে লম্বা জামা-কাপড় পরিধান করলে ভালো হয়।

বিশেষজ্ঞরা আরো বলছেন, বাড়ি থেকে বের হওয়ার আগে মদ্যপান না করা ভালো। সুগন্ধি ব্যবহার না করলে অনেকটা নিরাপদ থাকা যায়।

পিডিএসও/তাজ