যৌনশক্তি ও আকাঙ্ক্ষা বাড়ায় যেসব খাবার

প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৯:৫৪

অনলাইন ডেস্ক

পুরুষের যৌনশক্তি বৃদ্ধির জন্য কোনো প্রকার ওষুধের প্রয়োজন নেই, এজন্য দৈনন্দিন পুষ্টিকর খাবারদাবারই যথেষ্ট। আর তাই প্রতিদিন ডায়েট চার্টে রাখুন কিছু ফল-সবজি-খাবার যা আপনার লিঙ্গের স্বাস্থ্য সুরক্ষিত রাখবে। তাই যৌনশক্তি ও আকাঙ্খা বাড়াতে স্মরণাতীত কাল থেকেই ব্যবহৃত খাদ্যগুলোর একটি তালিকা দেওয়া হলো।

কলা : কলার রয়েছে অসংখ্য পুষ্টিগুন। কলায় থাকে ভিটামিন এ, বি, সি ও পটাশিয়াম। ভিটামিন বি ও পটাশিয়াম মানবদেহের যৌনরস উৎপাদন বাড়ায়। আর কলায় রয়েছে ব্রোমেলিয়ানও। যা শরীরের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতেও সহায়ক। আর সর্বোপরি কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণ শর্করা যা আপনার দেহের শক্তি বৃদ্ধি করে। ফলে দীর্ঘসময় ধরে যৌন মিলনে লিপ্ত হলেও আপনার ক্লান্তি আসবেনা।

ডিম : অনেকের প্রিয় খাবার ডিমে রয়েছে কোলেস্টেরল ও ভিটামিন বি, যা হরমোন উৎপাদন এবং আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি করে।

দুধ : সুষম খাদ্য হিসেবে খাদ্য তালিকার একেবারেই প্রথমে থাকে দুধ। দুধে আছে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট, যা সেক্স পারফর্মেন্স বাড়াতে সহায়তা করে। কারণ পুরুষের ক্ষেত্রে টেঁস টো সটেরন এবং নারীদের ক্ষেত্রে ইস্ত্রজেন হরমোন, যা মূলত যৌন জীবন নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।  

রসুন : রসুন মানবদেহের রক্তচলাচলের গতি বাড়িয়ে দেয়। আর জননাঙ্গে যথেষ্ট পরিমাণ রক্তপ্রবাহ থাকলে যৌন উত্তেজনায় কোনও ঘাটতি হওয়ার কথা নয়। গবেষণায় আরও দেখা গেছে, রসুন মানবদেহের নাইট্রিক অক্সাইড সিন্থেস উৎপাদনও বাড়িয়ে দেয়। এই উপাদানটি যৌন উত্তেজনা বাড়াতে খুবই কার্যকর ভুমিকা পালন করে।

ডুমুর : এই ফলটি উল্লম্বভাবে কাটার পর দেখতে অনেকটা নারীর যৌনাঙ্গের মতো হয়। প্রাচীনকাল থেকেই এটি প্রজনন উর্বরতা বাড়াতে খাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত হতো। এতে রয়েছে ভিটামিন এ, বি১, বি২, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ ও পটাশিয়াম। ক্লিওপেট্রার প্রিয় ফল ছিল ডুমুর।

চকলেট : ভালোবাসা ও যৌনতার সঙ্গে সবসময়ই চকলেটের একটা সম্পর্ক রয়েছে। এতে রয়েছে ফেনিলেথিলামিন (পিইএ) ও সেরোটোনিন। এ দুটি পদার্থ আমাদের মস্তিষ্কেও রয়েছে। এগুলো যৌন উত্তেজনা ও দেহে শক্তির মাত্রা বাড়াতে সহায়ক। পিইএ’র সঙ্গে অ্যানান্ডামাইড মিলে অরগাজমে পৌঁছাতে সহায়তা করে।

অ্যাসপ্যারাগাস : উনিশ শতকে ফরাসি পুরুষদেরকে বিয়ের একদিন আগে থেকেই অ্যাসপ্যারাগাস খাওয়ানো শুরু করা হতো। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ, সি, থায়ামাইন ও ফলিক এসিড। ফলিক অ্যাসিড নারী পুরুষ উভয়ের দেহেরই হিস্টামিন উৎপাদন বাড়ায় যা চুড়ান্ত যৌনসুখ উপলব্দি বা অরগাজমে সহায়তা করে।

মরিচ : গোল মরিচ থেকে শুরু করে লাল মরিচ সব ধরনের মরিচই যৌন শক্তি বর্ধক খাবার হিসেবে বিবেচিত হয়। মরিচ শরীরের সংবেদনশীলতা বাড়ায়। আর সংবেদনশীলতা যৌন কামনা বাড়ায়।

অ্যাভাকাডো :  এই ফলটি নারী ও পুরুষ উভয়েরই যৌনশক্তি বাড়াতে খুবই কার্যকরী। এই ফলটি দেখেই অনেকের যৌন সুড়সুড়ি লাগতে পারে। কারণ ফলটি দেখতে অনেকটা নারীদের যৌনাঙ্গের মতো। তবে ফলটি যখন গাছে ঝুলে থাকে তখন তা দেখতে অনেকটা পুরুষের অন্ডকোষের মতো মনে হয়।  এই ফলে প্রচুর পরিমাণ বিটা ক্যারোটিন, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন-ই, পটাশিয়াম ও প্রোটিন রয়েছে। আর সবগুলো পুষ্টি উপাদানই মানুষের যৌনতায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে।

পিডিএসও/তাজ