লিভার সুস্থ রাখার ঘরোয়া উপায়

প্রকাশ | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০৫ | আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:১৪

অনলাইন ডেস্ক

মানুষের দেহে যত ক্ষতিকর পদার্থ বা টক্সিন জমে তা শুধুমাত্র লিভারের মাধ্যমেই শরীর থেকে বের হতে পারে। কিন্তু লিভার যদি কোনো কারণে স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা হারায় তাহলে শরীরে জমে থাকা টক্সিন শরীরেই থেকে যাবে। তখন দেহের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ একে একে বিকল হতে থাকবে। এ কারণে লিভারের কর্মক্ষমতা স্বাভাবিক রাখা খুবই জরুরি। এ জন্য ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন।

১. বিশেষজ্ঞদের মতে, অন্যান্য খাবারের তুলনায় হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস যকৃৎ বা লিভারে অনেক বেশি এনজাইম উৎপাদনে সহায়তা করে। এ ছাড়া লেবুতে থাকা ভিটামিন সি গ্লুটেথিয়ন নামে যে এনজাইম উৎপন্ন করে, তা লিভার থেকে টক্সিন দূর করে লিভার সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।এ কারণে শরীর সুস্থ রাখতে সকালে খালি পেটে লেবু পানি খেতে পারেন।

২. গ্রিন টি-তে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট লিভার পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে। প্রতিদিন এক থেকে দু কাপ গ্রিন টি পান করলে লিভারে জমে থাকা টক্সিন দূর হবে। সেই সঙ্গে সারা শরীরের সব অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলো সঠিকভাবে কাজ করতে পারবে।

৩. রসুনে থাকা সালফারের উপাদান লিভারের এনজাইমের কার্যকারিতা বাড়ায়। এ ছাড়া এতে থাকা অ্যালিসিন ও সেলেনিয়াম লিভার পরিষ্কারের পাশাপাশি লিভারের সুস্থতা নিশ্চিত করে। তাই লিভার সুস্থ রাখতে প্রতিদিন অন্তত এক কোয়া রসুন খান।

৪. লিভার সুস্থ রাখতে দিনে ৭ থেকে ৮ গ্লাস বা ২ থেকে ৩ লিটার পানি পান করুন। তাহলে পানিই লিভারের মাধ্যমে শরীর থেকে টক্সিন ছেঁকে বের করতে সহায়তা করবে।

যখনই শরীরে পানির অভাব দেখা দেয় তখনই লিভার ও শরীরে টক্সিন জমতে থাকে যা শরীরের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গেরও ক্ষতি করে। দেহের যত ক্ষতিকর পদার্থ বা টক্সিন জমে তা শুধুমাত্র লিভারের মাধ্যমেই শরীর থেকে বের হতে পারে।

কিন্তু লিভার যদি কোনো কারণে স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা হারায় তাহলে শরীরে জমে থাকা টক্সিন শরীরেই থেকে যাবে। তখন দেহের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ একে একে বিকল হতে থাকবে। এ কারণে লিভারের কর্মক্ষমতা স্বাভাবিক রাখা খুবই জরুরি। 

পিডিএসও/তাজ