বায়ুদূষণে বুদ্ধিও কমে যায়

প্রকাশ : ২৯ আগস্ট ২০১৮, ১৭:১৬

অনলাইন ডেস্ক

তীব্র বায়ুদূষণের সঙ্গে মানুষের বুদ্ধি কমে যেতে পারে বলে চীনের এক নতুন গবেষণায় উঠে এসেছে। ৪ বছরব্যাপী চীনের ২০ হাজার মানুষের ওপর এ গবেষণা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন।

গবেষকরা মনে করেন, এ গবেষণাটি বিশ্বব্যাপী প্রাসঙ্গিক। বিশ্বজুড়ে শহরাঞ্চলের ৮০ শতাংশ মানুষ অনিরাপদ বায়ুদূষণের মধ্যে বসবাস করছে। বায়ুদূষণের শিকার ব্যক্তিদের গণিত এবং মৌখিক কিছু পরীক্ষা দেওয়া হয়েছিল। এর উদ্দেশ্য ছিল তাদের বুদ্ধিমত্তা যাচাই করা।

গবেষকরা দেখেছেন, যারা বায়ুদূষণের শিকার তারা সেসব পরীক্ষায় ভালো করতে পারেনি। পরীক্ষায় ভালো না করা এবং বায়ুদূষণের মধ্যে সংযোগ থাকলেও, এর কারণ এবং প্রভাব নিয়ে কোনো কিছু প্রমাণ হয়নি এ গবেষণায়।

চীনের পিকিং ইউনিভার্সিটি এবং আমেরিকার ইয়েল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা এ দলে অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। এ গবেষণায় তারা বায়ুতে সালফার ডাই-অক্সাইড, নাইট্রোজেন ডাই-অক্সাইড এবং ১০ মাইক্রোমিটারের ছোট ধূলিকণা পরিমাপ করেছেন। তবে এ তিনটি দূষিত কণার মধ্যে কে কতটা দায়ী সেটি এখনো পরিষ্কার নয়। কার্বন মনোক্সাইড, ওজন এবং বড় ধরনের কণাগুলো এ গবেষণায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

বায়ুদূষণকে অদৃশ্য ঘাতক হিসেবে বর্ণনা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে ৭০ লাখ মানুষ অপরিণত বয়সে মারা যায়। বায়ুদূষণের কারণে আলজেইমারস এবং স্মৃতিভ্রমের ঝুঁকি তৈরি করে।

এ গবেষণার সময় ২০১০ সালে থেক ২০১৪ সাল সময়ের মধ্যে ১০ বছর এবং তার চেয়ে বেশি বয়সী মানুষের ওপর পরীক্ষা চালানো হয়। তাদের বুদ্ধিমত্তা যাচাই করার জন্য ২৪টি গণিত এবং ৩৪টি শব্দ চিহ্নিত করার প্রশ্ন দেওয়া হয়েছিল।

বায়ুতে যেসব দূষণ কণিকা থাকে সেগুলো ছোট রাস্তা দিয়ে সরাসরি মগজে গিয়ে পৌঁছে। দূষণের শিকার অনেকের মাঝে মানসিক সমস্যাও তৈরি করতে পারে। এদের মধ্যে অনেকে মানসিক চাপে ভুগতে থাকে।

পিডিএসও/তাজ