জরুরি সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা

কর্মবিরতিতে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা

প্রকাশ : ২৩ মার্চ ২০১৮, ১৪:৪৮

অনলাইন ডেস্ক

নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত ও পুলিশি ব্যবস্থা জোরদারের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ঘোষণা দিয়েছে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় হাসপাতালের কম্পাউন্ডে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন ইন্টার্ন ডাক্তার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. রাজা আহমেদ। অবশ্য বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টা থেকে তারা কর্মবিরতি শুরু করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মবিরতির ঘোষণাকালে সভাপতি ডা. রাজা বলেন, গতকাল দুপুরে হাসপাতালে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া থানার পুলিশ কনস্টেবল মোহাম্মদ শাকিলের স্ত্রী খাদিজাকে (২২) মুমূর্ষু অবস্থায় ভর্তি করা হয়। তিনি ছিলেন নয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা ও অ্যাকলামশিয়া রোগে আক্রান্ত। তার প্রেসার বেশি ছিল ও অচেতন থাকায় জরুরি অপারেশন করা সম্ভব হয়নি। সন্ধ্যা ৭টার দিকে রোগীকে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মারা যায়। এ অবস্থায় রোগীর স্বজনরা চিকিৎসকদের উপর হামলা চালায় এবং তিন চিকিৎসককে জখম করে। অপারেশন থিয়েটারের আশপাশে ভাংচুর করে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা রাতেই ধর্মঘট শুরু করেন। এরই প্রেক্ষিতে সকালে সংবাদ সম্মেলনে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তাদের নিরাপত্তার দাবিতে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ঘোষণা দেন। সংবাদ সম্মেলনে ইন্টার্ন চিকিৎসক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নাহিদ হাসান বলেন, ইতোপূর্বে ইন্টার্নসহ সিনিয়র চিকিৎসকদের উপরে ১৭ বার হামলা হয়েছে। তারা প্রত্যেকবারই চিকিৎসকদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন, কিন্তু কখনো তা বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে চিকিৎসকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। নিরাপত্তা জোরদারের লক্ষ্যে পুলিশ বাড়ানো, ভিজিটর নিয়ন্ত্রণ ও সিসি ক্যামেরা সচল করাসহ বিভিন্ন দাবি জানান।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. আবদুল কাদির বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক। রোগীর স্বজনদের দাবি সময়মতো রোগীর অপারেশন করা হয়নি। কিন্তু রোগী অচেতন ছিলেন এবং প্রেসার বেশি ছিল। এমন রোগীর অপারেশন করা যায় না। রোগী মুমূর্ষু থাকায় মারা গেছে। কিন্তু স্বজনরা চিকিৎসকদের উপর হামলা চালিয়েছে। এই বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল