যেসব খাবারে দ্রুত বুড়িয়ে যাচ্ছেন

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৬:১৮ | আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৬:৩০

অনলাইন ডেস্ক

আপনার বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকে তার প্রভাব পড়বে এটাই স্বাভাবিক। তবে কিছু নিয়ন্ত্রণ অর্থাৎ ধূমপান ত্যাগ, দীর্ঘ সময় রোদে না থাকা এবং খ্যাদ্যাভাস পরিবর্তনের মাধ্যমে ত্বকের বার্ধক্য রোধ করা যায়। 

অনেকের আবার খাদ্যাভাস এবং জীবনযাপন পদ্ধতির কারণে বয়সের আগেই ত্বক বুড়িয়ে যায়। কিন্তু অল্প বয়সে বুড়িয়ে গেলে শুধু ত্বকেই ছাপ পড়ে না, শরীরের নানা জায়গায় ব্যথাও দেখা দেয়। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের অসুখ যেমন- ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, এমনকী ক্যান্সারও হতে পারে। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, জীবনযাপন পদ্ধতি ও খাদ্যাভাস পরিবর্তনের মাধ্যমে শরীরের ভেতর ও বাইরে একজন তরুণ থাকতে পারেন। দৈনন্দিন জীবনে এমন কিছু খাবার আছে যা ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া ত্বরান্বিত করে। 

প্রক্রিয়াজাত খাবার :  ব্যস্ত জীবনে আজকাল অনেকেই তৈরি খাবার খেতে পছন্দ করেন। মাইক্রোওভেনে গরম দিলে খাওয়া যায় এমন খাবার কিংবা প্যাকেটজাত বেশিরভাগ খাবারেই অতিরিক্ত লবণ থাকে যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এগুলো ত্বক কুঁচকে যাওয়া ত্বরান্বিত করে। 

শক্তিবর্ধক পানীয় : আজকাল বাজারে অনেক ধরনের শক্তিবর্ধক পানীয় পাওয়া যায়। এগুলোতে উচ্চ পরিমাণে চিনি , ক্যাফেইন, সোডিয়াম এবং এসিড থাকে। নিয়মিত এ ধরনের পানীয় পানে দাঁত নষ্ট হয়। সেই সঙ্গে শরীরে পানিশূন্যতাও তৈরি হয়।  এসব পানীয় পানে ত্বক দ্রুত বুড়িয়ে যায়।

অতিরিক্ত মিষ্টি জাতীয় খাবার : অতিরিক্ত চিনিমিশ্রিত খাবার খেলে নানা ধরনের অসংক্রামক রোগ দেখা দেয়। এটা শুধু ডায়াবেটিসই বাড়ায় না, ক্যান্সার সেল তৈরিতেও ভূমিকা রাখে। এছাড়া ফ্যাট ও ক্রিমযুক্ত বিভিন্ন ধরনের কেক, পেস্ট্রি খেলেও দ্রুত বার্ধক্য দেখা দেয়।

অ্যালকোহল পান : অতিরিক্ত অ্যালকোহল পানে মানুষ দ্রুত বুড়িয়ে যায়। 

প্রক্রিয়াজাত মাংস : আজকাল অনেক ফাস্ট ফুডের দোকানে প্রক্রিয়াজাত মাংসে তৈরি সুস্বাদু সব খাবার পাওয়া যায়। নিয়মিত এ ধরনের খাবার খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ে। এ কারণে বেকন, হট ডগ, সসেজের মতো প্রক্রিয়াজাত মাংসে তৈরি খাবার খাওয়া মোটেও ঠিক নয়। এছাড়া পিৎজা, ফ্রেঞ্চ ফ্রাইয়ের মতো অন্যান্য ফাস্টফুডও দ্রুত আপনার ত্বককে বুড়ো বানিয়ে ফেলে।

পিডিএসও/তাজ