পূজায় ভিন্নমাত্রার পোশাক

প্রকাশ : ০১ অক্টোবর ২০১৯, ১৮:৫১ | আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:২৪

তারেক আজিজ
পোশাক ডিজাইন : সৌম্য চাকমা (সমরেশ) | বুটিক শপ : আর্যেশ্বরী বুটিক পেরাবাহ

পূজা মানে আনন্দ। পুজা মানে হৈ-হুল্লোড় আর ঘুরে বেড়ানো। পরিবার বা বন্ধুদের সঙ্গে খাওয়া দাওয়া। পূজাকে ঘিরে চারদিকে সৃষ্টি হয় সাজ সাজ রব। এরইমধ্যে শুরু হয়ে গেছে শারদীয় দূর্গোৎসব।

হিন্দু ধর্মালম্বীদের এই বড় উৎসবকে কেন্দ্র করে দেশের ফ্যাশন হাউজগুলো সেজেছে বর্ণিল আয়োজনে। পোশাকে এনেছে নানা রং আর বৈচিত্র। এক্ষেত্রে আদিবাসী বুননে বৈচিত্রের সম্ভার আর্যেশ্বরী বুটিক পেরাবাহ সেজেছে তার নিজস্ব ঢং ও স্টাইলে।

পোশাক ডিজাইন : সৌম্য চাকমা | বুটিক শপ : আর্যেশ্বরী বুটিক পেরাবাহ

এ ফ্যাশন হাউজের ডিজাইনার সৌম্য চাকমা (সমরেশ) বলেন, আমি সবসময় পোশাকে বৈচিত্রতা আনতে ভালোবাসি। আদিবাসীদের  তাতে বোনা কাপড়ের সঙ্গে জ্যাকেট সুতি কাপড় ব্যবহার করে  আয়না, পুতি, কারচুপি, সুতা ও চুমকির কাজ করে পোশাকে এক ভিন্ন আঙ্গিক তুলে ধরতে চেষ্টা করেছি। 

তিনি বলেন, সবাই যখন লাল, সাদা, নীল ব্যবহার করে পূজার পোশাক তৈরি করছে, সেখানে আমার ভাবনা ভিন্ন ধরনের। লালের সঙ্গে কালো ও অন্যান্য রং ব্যবহার করে পুজার পোশাক এক ভিন্নরূপে তুলে ধরা। 

মডেল : খ্রীষ্টিনা কলি ও ত্রিপনা : পোশাক ডিজাইন : সৌম্য চাকমা

অন্যদিকে, যারা শাড়ি পড়তে পছন্দ করেন না বা সামলাতে কষ্ট হয় তাদের জন্য পূজায় সালোয়ার কামিজ বেছে নেওয়া ভালো। তাই পুজায় আকর্ষণীয় সালোয়ার কামিজও হতে পারে সবার নজরকারা। 

পোশাক ডিজাইন : সৌম্য চাকমা (সমরেশ) বুটিক শপ : আর্যেশ্বরী বুটিক পেরাবাহ 
সাজ : নিপুনস মেকওভার। ছবি : অলোক স্টুডিও

পিডিএসও/তাজ