নারীর সাজে হিজাব

প্রকাশ : ১৮ মার্চ ২০১৮, ২০:১৮

ফ্যাশন ডেস্ক

ফ্যাশনের অনুষঙ্গ হিসেবে নারীদের কাছে হিজাব একটি চলমান ট্রেন্ড। পর্দা করা ছাড়াও হিজাবের রয়েছে নানা উপকারী দিক। বাইরের ধুলাবালি থেকে ত্বক ও চুলের সুরক্ষা দিতে এর তুলনা হয় না। হিজাব পরলে চুল ঠিক করার ঝামেলা থাকে না। যেকোনো পোশাকে সুন্দর করে হিজাব পরলে অল্পতে জমকালো সাজ হয়ে যায়।

শাড়ি, কামিজ, কুর্তা বা অন্য যেকোনো পোশাকের সঙ্গেই হিজাব পরা যায়। তবে হিজাবের সঙ্গে অবশ্যই লম্বা হাতা বা থ্রি কোয়ার্টার হাতার পোশাক বেছে নিতে হবে। হিজাবের সঙ্গে ছোট হাতার পোশাক একদমই বেমানান। স্কুল-কলেজ, নানা ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠানসহ কর্মস্থলেও মেয়েরা অনায়াসে ব্যবহার করতে পারেন হিজাব। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে হিজাব পরলে খুব সুন্দর দেখায়।

পরনের পোশাকটি বেশি নকশাদার বা প্রিন্টের হলে একরঙা হিজাবও পরতে পারেন। আজকাল বিয়ের জমকালো সাজেও হিজাবের ব্যবহার চলছে। আগত নারী অতিথি বা বিয়ের কনের পুতি-চুমকি আর জরি মোড়া ঝলমলে সাজে হিজাব এনে দিচ্ছে নতুন মাত্রা। বাজারে কটন, লেস, জর্জেট, সাটিনসহ নানা ধরনের কাপড়ের হিজাব পাওয়া যায়। কাপড়ের মান ও নকশার ওপর ভিত্তি করে হিজাবগুলো পাবেন। তাই খুব সহজেই বেছে নিতে পারবেন আপনার পছন্দের হিজাবটি। নিজেকে মার্জিতভাবে উপস্থাপন করতেও হিজাব বেশ উপকারী।

যারা হিজাব পরা শুরু করেছে তাদের নতুন অবস্থায় হিজাব পরতে অনেক সমস্যা দেখা দেয়। তা ছাড়া বিভিন্ন স্টাইলে হিজাব পরা যায়। হিজাবের মূল অনুষঙ্গ হলো স্কার্ফ। তা ছাড়া জামার ওড়না, কিনতে পাওয়া দোপাট্টা দিয়েও অনেকে হিজাব পরে। সবচেয়ে সহজ উপায়ে হিজাব পরা যায় একটা বড় ওড়না, স্কয়ার অথবা তিনকোনা স্কার্ফ নিয়ে মাথায় পরে, দুই সাইড থেকে কোনা নিয়ে এসে গলার ওপরে, থুতনির নিচে পিন দিয়ে আটকে দেওয়া। যারা স্টাইলিস্টভাবে হিজাব পরতে চান তারা কনট্রাস্ট হিজাব পরতে পারেন। কনট্রাস্ট হিজাব পরতে গেলে ২টা মানানসই রঙের হিজাব নিয়ে একটি মাথায় আরেকটি গলার কাস থেকে বাঁধতে হবে, যাতে রঙের লেয়ার বোঝা যায়।

হিজাবের দরদাম :  সবচেয়ে ভালো হিজাব পাওয়া যায় চাঁদনী চক, নিউমার্কেট, বায়তুল মোকারাম মসজিদ, বসুন্ধরা মার্কেট, মগবাজার বোরকার মার্কেট। দাম একেকটার একেক রকম। ১৫০ থেকে শুরু করে ২৫০০ টাকা দামের হিজাব পাওয়া যায়। কিন্তু দরদাম করে কেনাই ভালো। তা ছাড়া রেডি হিজাব পাওয়া যায়। এসবের দাম ৪০০-১২০০ টাকা।

পিডিএসও/তাজ