সালমান শাহকে উৎসর্গ করে গাঙচিলের যাত্রা

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:১৭ | আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:২৯

বিনোদন প্রতিবেদক

গতকাল বুধবার ছিল বাংলাদেশের অমর নায়ক সালমান শাহ’র জন্মদিন। তার অভিনয়ে অনুপ্রাণিত হয়েই চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু হয় চিত্রনায়ক ফেরদৌসের। ফেরদৌসের প্রযোজনা সংস্থা নুজহাত ফিল্মস এবং পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের প্রযোজনা সংস্থা ‘ইচ্ছেমতো’র প্রযোজনায় আগামী অক্টোবর থেকে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের নির্দেশনায় শুরু হতে যাচ্ছে ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস অবলম্বনে ‘গাঙচিল’ চলচ্চিত্রটি।

গতকাল দুপুরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে চলচ্চিত্রটির শুভ মহরত অনুষ্ঠিত হয়। মহরত অনুষ্ঠানেই ফেরদৌস ‘গাঙচিল’ চলচ্চিত্রটিকে অমর নায়ক সালমান শাহকে উৎসর্গ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুসহ সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, কিংবদন্তি অভিনেতা তারিক আনাম খান ও নায়ক মান্নার স্ত্রী শেলী মান্নাসহ ‘গাঙচিল’ উপন্যাসের লেখক ওবায়দুল কাদের। হৃদির উপস্থাপনায় মহরতের শুরুতেই মঞ্চে বক্তৃতা দেন ফেরদৌস।

ফেরদৌস বলেন, মাননীয় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে আমি ভীষণ কৃতজ্ঞ যে, তিনি তার উপন্যাসটি আমাকে দিয়েছেন চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য। আমি আরো কৃতজ্ঞ আমার বন্ধু পূর্ণিমা ও ঋতুপর্ণার কাছে। কারণ দুজনই দুই লাইনে আমার কাছে গাঙচিলের গল্প শুনে চলচ্চিত্রটিতে অভিনয়ের জন্য সম্মতি জানিয়েছেন। নেয়ামুল আমার পাশে থেকে আমাকে সব সময়ই সহযোগিতা করছে। সবমিলিয়ে আমার বিশ্বাস গাঙচিল হবে আন্তর্জাতিক মানের একটি চলচ্চিত্র; যা শুধু দেশেই নয় দেশের বাইরেও পুরস্কৃত হবে— ইনশাল্লাহ।

পূর্ণিমা বলেন, নেয়ামুলের নির্দেশনায় চলচ্চিত্রে এবারই প্রথম কাজ করছি। ভালোলাগার বিষয় হলো ফেরদৌস আমার খুব ভালো বন্ধু। তার প্রযোজিত চলচ্চিত্রে কাজ করতে যাচ্ছি। গাঙচিল এবং জ্যাম একসঙ্গে আমি ও ফেরদৌস দুটি চলচ্চিত্রে কাজ করতে যাচ্ছি। তাই আমার চলচ্চিত্রে ফেরাটা অনেক ভালোভাবেই হচ্ছে।

ঋতুপর্ণা বলেন, ‘আমিই কিন্তু অনেক আগে থেকে দুই বাংলার মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করে আসছি। আমি কখনোই দুই বাংলাকে বিভক্ত করে দেখি না। আমি মনে করি, দুই বাংলা মিলিয়েই এক বাংলা।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, আমাদের দেশে মা-বোনরা এখন হলে যান না। যে কারণে সিনেমা ব্যবসায় অনেকটাই ধস নেমেছে। মা-বোনদের হলে ফিরিয়ে আনতে হলে সিনেমা হলের পরিবেশ ভালো করতে হবে, যুগোপযোগী করতে হবে। তাহলেই আমাদের চলচ্চিত্র তার সোনালি দিন ফিরে পাবে। অনেক অনেক শুভকামনা রইল, মাননীয় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস নিয়ে নির্মিতব্য গাঙচিল চলচ্চিত্রের জন্য। আমার বিশ্বাস এই সিনেমা দেখতে দর্শক হলে আসবেন। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন হাসানুল হক ইনু, তারানা হালিম, শেলী মান্না ও তারিক আনাম খান। দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে মহরত অনুষ্ঠান শেষ হয়।

উল্লেখ্য, ওবায়দুল কাদেরের গল্পে ‘গাঙচিল’ উপন্যাসের সংলাপ ও চিত্রনাট্য রচনা করেছেন মারুফ রেহমান। একই চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন ফেরদৌস, পূূর্ণিমা ও ঋতুপর্ণা।

পিডিএসও/তাজ