আমি এমপি হতে চাই : হিরো আলম

প্রকাশ : ৩০ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৫৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

যেমন আলোচিত তেমন সমালোচিত। জনপ্রিয়তারও কমতি নেই। নানান সময় নানান খবরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও মিডিয়াঙ্গনে তাকে নিয়ে শোনা যায় নানান কথা। তিনি হিরো আলম। বগুড়ার এই তরুণ ইতোমধ্যে জয় করে নিয়েছেন লক্ষ লক্ষ ভক্তের হৃদয়। নতুন করে তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। কিন্তু নতুন খবর হচ্ছে এবার বগুড়া-৬ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এমপি নির্বাচন করতে চান তিনি। এর আগে ইউপি সদস্য নির্বাচন করে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছিলেন হিরো আলম খ্যাত আশরাফুল হোসেন আলম।

বগুড়ার এরুলিয়া বাজার এলাকায় নিজ অফিসে গণমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে হিরো আলম বলেন, জনগণের ভালোবাসা ও প্রত্যক্ষ ভোটে আমি এমপি হতে চাই। মনোবল থেকেই আমার ওঠে আসা।

সাক্ষাৎকারে হিরো আলম বলেন, চেহারা দেখে মানুষের যোগ্যতার বিচার করা যায় না। প্রতিটি সফলতার ধাপে ধাপে থাকতে হয় প্রতিভা। আমার গর্ব আমি বগুড়ার সন্তান। তাই বগুড়া নিয়েই আমার স্বপ্ন বেশি।

বলিউডে অভিনয় নিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রথম অভিনেতা (নায়ক) হিসেবে আমি বলিউডে সুযোগ পেয়েছি। এখানে আমিই প্রথম। সত্যিই এটা স্বপ্নের মতো। মিডিয়া আর জনগণের ভালোবাসায় আমার স্বপ্ন পূরণের পথে।

এ সময় হিরো আলম বলেন, আমার ভক্তদের কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ। তাদের জন্যই আজ আমি হিরো আলম হতে পেরেছি। প্রতিভা মানুষকে আলোকিত করে। যাদের প্রতিভা আছে, তাদেরকে সুযোগ দিন।

হিরো আলম মিডিয়ার সহযোগিতা চেয়ে বলেন, মিডিয়া সাপোর্ট করলেই একটি প্রতিভা বিকাশের সুযোগ পায়। গ্রামাঞ্চলে অনেক প্রতিভা আছে, যারা সুযোগের অভাবে পিছিয়ে পড়েছে। তারাও চেষ্টা করলে আর মিডিয়ার সহযোগিতা পেলে স্বপ্ন পূরণ করতে পারব বলে আমি বিশ্বাস করি।

রাজনৈতিক দলের সমর্থনের প্রশ্নে হিরো আলম বলেন, আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দুইবার নির্বাচন করেছি। এবারও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবেই নির্বাচন করতে চাই। তবে কোনো রাজনৈতিক দল আমাকে মনোনয়ন দেয়ার প্রস্তাব দিলে ভেবে দেখব।

তিনি বলেন, যদি নির্বাচন করি তাহলে এমপি নির্বাচনই করব। জনগণ আমাকে এমপি নির্বাচিত করলে, আমি সংসদে গিয়ে প্রথমে গ্রামের প্রতিভার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি রাস্তাঘাটসহ সব উন্নয়নের কথা বলব।

গত ২০১৬ সালের ৪ জুন বগুড়া সদর উপজেলার এরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্রার্থী হয়ে ভোটযুদ্ধে দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন হিরো আলম।

পিডিএসও/রিহাব