লাকসাম ও মনোহরগঞ্জে মোঃ তাজুল ইসলাম

নৌকায় ভোট দিলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে

প্রকাশ : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৯:৫৬

মনোহরগঞ্জ (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
ama ami

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, লাকসাম ও মনোহরগঞ্জ উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। লাকসাম পৌরসভায় প্রায় দেড় শত কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন হয়েছে। নৌকা মার্কা মানে দেশের মানুষের উন্নয়ন। নৌকা মার্কায় ভোট দিলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে এবং দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়।

মঙ্গলবার লাকসাম উপজেলার কান্দিরপাড় ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে উঠান বৈঠকে এবং সোমবার মনোহরগঞ্জ উপজেলার নাথেরপেটুয়া ও বিপুলাসার ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে উঠান বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, আমার নির্বাচনী আসন লাকসাম ও মনোহরগঞ্জের উন্নয়ন আর আপনাদের সমস্যার সমাধানে দিন-রাত শ্রম দিয়েছি। আপনাদের জন্য কাজ করতে গিয়ে নিজের পারিবারিক জীবন বিসর্জন দিয়েছি। আসন্ন নির্বাচনে ভোটের দিন আপনাদের জন্য ব্যয় করা শ্রমের মূল্য চাই। আমি আপনাদের সন্তান এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর আপনাদের সুখে-দুঃখে আপনাদের পাশে ছিলাম। যতদিন বেঁচে আছি তত দিন আপনাদের পাশে থাকব। তাই আগামী ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট আমাকে ভোট দেওয়ার জন্য আপনাদেরকে আহ্বান জানাচ্ছি।

এসময় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা প্রফেসর গোলাম মোস্তফা উপস্থিত থেকে বলেন, লাকসাম-মনোহরগঞ্জে জাতীয় পার্টির কোনও প্রার্থী না থাকায় আমরা মোঃ তাজুল ইসলামকে সমর্থন জানাচ্ছি। তাই এই আসনে জাতীয় পার্টির কর্মী ও সমর্থকদেরকে ৩০ ডিসেম্বর সারাদিন নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। লাকসামে উঠান বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন শিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু পার্থ সারথী দত্ত, লাকসাম উপজেলা চেয়ারম্যান এড.  ইউনুছ ভূঁইয়া, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য এড. আবু তাহের, লাকসাম পৌরসভা মেয়র আবুল খায়ের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আবদুল মন্নান মনু, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. রফিকুল ইসলাম হিরা, লাকসাম উপজেলা যুবলীগ নেতা মনিরুল ইসরাম রতন, আবদুল আলিম দিদার,  মোশারফ হোসেন মজুমদার, কান্দিরপাড় ইউপি চেয়ারম্যান ওমর ফারুক, যুব মহিলা লীগ নেত্রী পড়শী সাহাসহ উপজেলা ও কান্দিরপাড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

অন্যদিকে মনোহরগঞ্জ উঠান বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাষ্টার আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য এড. তানজিনা আক্তার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আবদুল মন্নান চৌধুরী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক প্রফেসর আবদুর রশিদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মনির আহম্মেদ কোম্পানী, নাথেরপেটুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার রুহুল আমিন, বিপুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান দুলাল, বিপুলাসার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহফুজুল হক মজুমদার, আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কাশেম, মোরশেদ আলম, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক দেওয়ান জসিম উদ্দিন, যুগ্ম আহ্বায়ক জিয়াউর রহমান শাহীন জিয়া, জানে আলম, এমএইচ নোমান, আমির হোসেন, মহি উদ্দিন, যুবলীগ নেতা শাহাদাত হোসেন, ইকবাল মাহমুদ, হারুন, রিপন, জসিম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক মোঃ সেলিম কাদের চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন সুমন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন বাবলু, সহ সভাপতি মোঃ আমিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী, ছাত্রলীগ নেতা আবু নওশাদ, ইমরান হোসেন, মাজহারুল ইসলামসহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

 

পিডিএসও/রিহাব