ঠাকুরগাঁও-২

কারাবন্দি হাকিমেই ভরসা বিএনপির

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:৩৯ | আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:৪৪

আল মামুন জীবন, বালিয়াডাঙ্গী (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি

অবশেষে অপেক্ষার প্রহর শেষ হলো বিএনপি এবং দলটির অঙ্গ সংগঠনগুলোর। ঠাকুরগাঁও-২ আসনে আ.লীগের প্রার্থী দবিরুল ইসলামের সঙ্গে ভোট যুদ্ধে কে লড়বেন? এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল জামায়াত-বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে। মাঠ-ঘাট থেকে চায়ের দোকান সর্বত্রই এই নিয়ে ছিল নানা গুঞ্জন।     

শেষ পর্যন্ত ঠাকুরগাঁও জেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা আব্দুল হাকিমকে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে একটি মামলায় কারাগারে আটক রয়েছেন তিনি।  

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চিঠির মাধ্যমে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার বরাবর আব্দুল হাকিমের চূড়ান্ত মনোনয়ন প্রেরণ করেন। 

এবারই প্রথম ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন মাওলানা আব্দুল হাকিম। এর আগে এই আসনে জামায়াতের এই প্রার্থী দাড়িপাল্লা মার্কা নিয়ে নির্বাচন করে নৌকার বর্তমান সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলামের কাছে চারবার পরাজিত হয়েছেন।   

তবে জামায়াতের প্রার্থী হলেও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কারণে বেশ উচ্ছসিত বিএনপির নেতাকর্মীরা। দীর্ঘ ২২ বছর পর ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দিতে পারবেন তারা।  

যদিও এ আসন থেকে বিএনপির পেশাজীবী সংগঠন ডক্টর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) এর সহ-সভাপতি ডা. আব্দুস সালাম, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ড. টি এম মাহবুবর রহমান ও কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী সদস্য জেড মর্তুজা চৌধুরী তুলাকে মনোনয়ন প্রদান করেছিল বিএনপি। যদিও সকল প্রার্থীরা নিজ নিজ প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। 

প্রসঙ্গত, হাইকোর্টের নির্দেশে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে নিবন্ধন বাতিল হওয়ায় নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেনা জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ। জোটবদ্ধ ভাবে বিএনপির প্রতীক ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে জামায়াতের প্রার্থীরা।

পিডিএসও/অপূর্ব