শাবিপ্রবিতে চড়াও মূল্যে খাবার বিক্রি

নোটিশ ছাড়াই শাহপরান হলে পুলিশের তালা!

প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ২০:০৪

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে বিভিন্ন আবাসিক হলে চড়াও মূল্যে খাবার বিক্রি করা হচ্ছে। হল প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই ক্যাফেটেরিয়া ও ডাইনিংয়ে আকস্মাৎ দাম বাড়ানোয় ক্ষোভ বিরাজ করছে আবাসিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে। এদিকে ভর্তি পরীক্ষার আগের রাতে বিনা নোটিশে শাহপরান হলের প্রধান ফটকে পুলিশ কর্তৃক তালা ঝুলানো হয়। এতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েন। এসময় পুলিশ সদস্যরা হলের আইডি কার্ড ছাড়া ভিতরে প্রবেশ করা যাবেনা বলে ঘোষণা দেন। ফলে আইডি কার্ড ছাড়া বের হওয়া আবাসিক শিক্ষার্থীরা বেশ বিপাকে পড়েন।

ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে গত বৃহস্পতিবার থেকেই আবাসিক হলগুলোতে আসতে শুরু করেন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। এই সুযোগ নিয়ে ডাইনিং ও ক্যাফেটেরিয়ার মালিকরা নিজেদের মনগড়া দামে খাবার বিক্রি করেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শারপরান হলের ডাইনিয়য়ে ভাত-তরকারি ও ডালসহ খাবারের দাম ২২ টাকা নির্ধারিত থাকলেও ভর্তিচ্ছু বেশ কিছু শিক্ষার্থীর কাছে ২৫টাকা করে বিক্রি করা হচ্ছে। ক্যাফেটেরিয়ায়  গিয়ে দেখা যায়,  গরুর মাংসের নিয়মিত দাম ৩৫ টাকা হলেও বিক্রি করা হচ্ছে ৪০ টাকায়, মুরগীর মাংস ২৮ টাকার স্থলে ৩০ টাকা, কৈ মাছ ৩০ টাকার স্থলে ৩৫ টাকা, শুটকি ভোনা ২৮ টাকার স্থলে ৩৫ টাকা,  মুড়ি ঘন্ট ২৮ টাকার স্থলে ৩৫ টাকায় বিক্রি করা হয়।
এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে ‘ভাল খাবারের’ নাম করে বেশ চড়াও মূল্যে খাবার বিক্রি করা হয়েছে বলে অভিযোগ সাধারণ শিক্ষার্থীদের।
অপরদিকে বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলে রুই মাছ ২০ টাকার স্থলে ৪৫ টাকা, ঝাল ফ্রাই ৪৫ টাকার স্থলে ৬০ টাকায় বিক্রি করা হয়। তবে রুই মাছের সাইজ বড় হওয়ায় এবং ঝাল ফ্রাই’র স্থলে রোস্ট রান্না  করায় খাবারের দাম বাড়ানো হয় বলে জানান কেন্টিন মালিক। তবে আবাসিক ছাত্রীরা জানান, যে হারে দাম বাড়ানো হচ্ছে সে হারে মাছ বা মাংসের সাইজ বাড়ানো হচ্ছে না। প্রতিবছরই ভর্তি পরীক্ষার সময় এভাবে দাম বাড়ানো হয় বলে অভিযোগ করেন তারা।
শাহপরান হল ক্যাফেরটরিয়ার পরিচালক কামাল মিয়া জানান, ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে অতিরিক্ত স্টাফের বেতন পরিশোধসহ খরচ বেড়ে যাওয়ায় খাবারের দাম কিছুটা পরিবর্তন করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে শাহপরান হল প্রভোস্ট শাহেদুল হোসাইন বলেন, ‘হল কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা দাম না বাড়ানো। এটা কন্ট্রোল করার কোন স্কোপ নেই। ডিমান্ড বেশি থাকলে যা হয় আর কি।’ 
বিনা নোটিশে দাম বাড়ানোয় জড়িতদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হবে কিনা এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘সব বন্ধ করে তাদেরকে বিদায় করে দিতে হবে। ক্যাফেটেরিয়া ও ডাইনিং পরিচালনায় ভাল লোক খোঁজার জন্য এ প্রতিবেদককে বলেন তিনি। এছাড়া হল ফটকে তালা দেয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে  আপাতত রাখি বলে ফোন কেটে দেন।’ 

পিডিএসও/রানা