করোনা আক্রান্ত জবি শিক্ষার্থী, জানে না স্থানীয় প্রশাসন!

প্রকাশ : ০৮ এপ্রিল ২০২০, ১৬:০৪ | আপডেট : ০৮ এপ্রিল ২০২০, ১৬:২৭

জবি প্রতিনিধি

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সেই শিক্ষার্থী এখন সুস্থতার পথে ও তার শরীরে মৃদু সংক্রমণ হয়েছে বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। তিনি আগের থেকে সুস্থ বোধ করছেন বলে জানিয়েছেন। ওই শিক্ষার্থীর শরীরে করোনার সংক্রমণ খুব বেশি না হওয়ায় আইসোলেশনে নেওয়া হয়নি।

তবে শনাক্ত হওয়ার পরও আইইডিসিআরে ফোন দিয়ে কম রেসপন্স পাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। এদিকে করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরও তার বাসা ও এলাকা এখনো লকডাউন করা হয়নি। আক্রান্ত শিক্ষার্থীর বিষয়ে জানে না স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনও।

ওই শিক্ষার্থী জানান, কিছুদিন আগে জ্বর, হাঁচি-কাশি ও শ্বাসকষ্টে খুব ক্রিটিকাল অবস্থার মধ্যে ছিলেন। গত দুইদিন তিনি আগের থেকে ভালো আছেন এবং সুস্থ আছেন। যারা কারণে বুধবার আইসোলেশনে নেওয়ার কথা থাকলেও তাকে নেওয়া হয়নি। আইইডিসিআর থেকে জানানো হয়েছে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে আইসোলেশনে নেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, এখন পরিবারের সাথে উত্তরার আজমপুরে অবস্থান করছেন। আলাদা একটি রুমে অবস্থান করছেন। পরিবারের সংস্পর্শে আসছেন না। তার পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। 

তার শরীরে ভাইরাস কিভাবে সংক্রমিত হতে পারে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি ক্যাম্পাস বন্ধ দেওয়ার পরপর আর বাস থেকেই বের হই। এর মধ্যে দুইদিন টিউশনির জন্য পাবলিক বাসে উঠেছিলাম। আশঙ্কা করছি সেখান থেকেই হয়েছে। 

তবে শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, করোনা পজিটিভ হওয়ার পরও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন তার সাথে যোগাযোগ করেনি। তিনি যে ভবনে অবস্থান করছেন, সেখানেও লকডাউন দেওয়া হয়নি।

দক্ষিণখান জোনের এসি ফয়সাল প্রতিদিনের সংবাদকে জানান, তার এলাকায় যে করোনা আক্রান্ত রোগী আছে তিনি সে ব্যাপারে অবগত নন। আপনাদের মাধ্যমেই এ খবর পেলাম। আজকের ভেতর বাড়িটি লকডাউন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। দক্ষিণ খান থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করতে ফোন দেওয়া হলে কলটি ধরেননি তিনি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মীজানুর রহমান বলেন, আমরা সার্বক্ষণিক তার খোঁজ নিচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

প্রসঙ্গত, জবির প্রথম বর্ষের এক শিক্ষার্থীর গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বর ও মাথা ব্যথা থাকায় সোমবার (৬ এপ্রিল) হটলাইনে ফোন দিলে তাকে আইইডিসিআর নিয়ে যায়। পরে মঙ্গলবার পরীক্ষা শেষে তাকে করোনা পজিটিভ বলে নিশ্চিত করা হয়।

পিডিএসও/হেলাল