নোবিপ্রবির হলে ৩ ছাত্রীর বিরুদ্ধে মাদক সেবনের অভিযোগ

প্রকাশ : ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:০৪

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) হযরত বিবি খাদিজা ছাত্রী হলের তিন আবাসিক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে গাঁজাসহ মাদক সেবনের অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার রাতে আনুমানিক সাড়ে এগারোটার দিকে হলের সিড়িতে বসে মাদক সেবনের সময় সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলে ।

অভিযুক্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের বিবিএ ডিপার্টমেন্টের, ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের অর্থনীতি বিভাগের এবং ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের শিক্ষার্থী। যাদের মধ্যে দুইজন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মডেল ইউনাইটেড নেশন (মান) এর গুরুত্বপূর্ণ পদে দ্বায়িত্বরত রয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হলের একাধিক শিক্ষার্থী বলেন, হলের ভেতরে প্রায় সময়ই মাদক সেবন করে কয়েকজন আবাসিক শিক্ষার্থী। আগে হলের ছাদে গিয়ে সেবন করত, এখন হলের ভেতরে এ কাজ করে। এতে অনেক সমস্যা হয়। একজন মেয়ে কিভাবে আবাসিক হলের ভেতরে মাদক সেবন করে? এদের জন্য হলের ছাদ পর্যন্ত বন্ধ করে দিয়েছে হল প্রশাসন। আমরা ছাদে গিয়ে কাপড় শুকাতে পারিনা। ভয়ে এতদিন কিছু বলতে পারিনি। গত রাতে যখন হলের সিঁড়িতে বসে মাদক সেবন করছিল তখন আমরা হাতেনাতে ধরে স্যারদের কল দেই। আমরা মাদকমুক্ত হল চাই।

জানা যায়, হলের ছাদে মাদক সেবনের অভিযোগ পেয়ে ছাদে যাওয়ার গেট বন্ধ করে দেয় হল প্রশাসন। এখনো সেটি বন্ধ আছে। ছাদ বন্ধ থাকার কারণে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা রোদে কাপড় শুকাতে পারেনা। এসব নিয়ে হলের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ অনেকদিনের।

এদিকে অভিযুক্তদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের মডেল ইউনাইটেড নেশনস (মান) এর সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা শিক্ষার্থী নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করে গতরাতে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। তবে সেই স্ট্যাটাসে ধূমপানের বিষয়টি তিনি স্বীকার করেন। সেখানে তিনি মানসিক চাপ কমানোর জন্য সিগারেট খান বলেও জানান।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হল প্রভোস্ট অধ্যাপক আতিকুর রহমান ভূঞা বলেন, হলে মাদক সেবনের বিষয়টি আমি জেনেছি। জানার পর সেখানে প্রক্টরিয়াল বডি ও সহকারী প্রভোস্ট পাঠিয়েছি এবং আমাদের কাছে অভিযোগপত্র এসেছে আমরা তদন্ত সাপেক্ষে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেব।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় মডেল ইউনাইটেড নেশন (মান) এর এডভাইজার নাজমুজ সাকিব খানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, অভিযুক্তদের সব ধরনের কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে বিরত রাখা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পিডিএসও/তাজ