ঢাবি ক্যাম্পাসে ফের হামলার শিকার ছাত্রদল

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:২৪ | আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:৩৬

ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ফের হামলার শিকার হয়েছে ছাত্রদল। এবার তাদের উপর হামলা চালিয়েছে মুক্তিযুদ্ধমঞ্চের নেতাকর্মীরা। রোববার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এই হামলার ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয়েছেন ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী।

ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেনের কথিত ফেসবুক অ্যাকাউন্টের `শর্ট বায়ো` নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করছিলো মুক্তিযুদ্ধমঞ্চ। সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে ছাত্রদলকে। এসময় ছাত্রদল মধুর ক্যান্টিনের মেঝেতে অবস্থান করে।

পরে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতির নেতৃত্বে মধুর ক্যান্টিনের অভ্যন্তরেই ছাত্রদলের উপর ঝাপিয়ে পড়ে মঞ্চের অন্যান্য নেতাকর্মীরা। এতে আহত হন মামুন খান (এসএম হল ২০০৩-০৪), শাহজাহান শাওন(জিয়া হল ২০০৮-০৯), তারেক হাসান মামুন (জিয়া হল ২০১০-১১)সহ বেশ কয়েকজন ছাত্রদল কর্মী।

ছাত্রদলের অভিযোগ, মুক্তিযুদ্ধমঞ্চের সাথে পরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও যোগ দেন এবং মারধর করেন। তবে হামলার ঘটনায় সম্পৃক্ততার বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগের দুই শীর্ষ নেতাকে একাধিকবার মুঠোফোনে চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

এদিকে এর আগে সকাল এগারোটার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিতে এক সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল জানান, তার নাম দিয়ে ব্যবহৃত সকল ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ভুয়া। যে অ্যাকাউন্টের `শর্ট বায়ো`র উপর ভিত্তি করে ছাত্রলীগ কথা বলছে, সেটির সাথে তার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই বলে দাবি করেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছাত্রদল সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলের নামে দশের অধিক অ্যাকাউন্টের দেখা মেলে। তবে শ্যামলের দাবি, এর কোনোটিই তার নয়।

এর মধ্যে একটি অ্যাকাউন্টের ‘বায়ো’তে ‘৭৫ এর হাতিয়ার, গর্জে উঠুক আরেকবার’ লেখা দেখা যায়। এরই প্রতিক্রিয়ায় ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের শুভাকাঙ্ক্ষী অন্য সংগঠনগুলোর মাঝে তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠে।

ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমি নেতা নির্বাচিত হওয়ার কয়েকদিন পরই আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়। আমি নিজের আইডিতে ঢুকতে পারি না। আমার নামে ১৬টি এবং আমার সভাপতি খোকনের নামে ২২টি আইডি চালু রয়েছে।’

এই বিষয়ে অনেক আগেই আইনি পদক্ষেপ নিয়েছেন জানিয়ে শ্যামল বলেন, এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আমরা দুজনই তেজগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি। এসব আইডি থেকে কোনো বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার হলে সেই দায় আমাদের না।’

পিডিএসও/তাজ