জাবিতে অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণে প্রতিবাদ চলছেই

প্রকাশ : ১৮ জুলাই ২০১৯, ১৯:২২

জাবি প্রতিনিধি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় নির্মিতব্য ছাত্র হলগুলোকে অপরিকল্পিত আখ্যা দিয়ে পরিকল্পিত ভবন নির্মাণের দাবিতে একের পর এক কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের কথিত মহাপরিকল্পনা পুনর্বিন্যাসের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্যমঞ্চ। এতে দুইটি বিভাগের তিনজন শিক্ষকসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

বিক্ষোভ মিছিলটি সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের পূর্ব পাশ থেকে শুরু হয়ে কয়েকটি ভবন ও সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা বলেন, আমাদের দাবির মুখে গতকাল বুধবার মাননীয় উপাচার্য আমাদেরকে নিয়ে বসেছিলেন। সেখানে একদিকে আমাদেরকে বসিয়ে রাখা হয়েছে, অন্যদিকে গাছ কাঁটা হচ্ছে, হল নির্মাণের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। আমরা উন্নয়ন চাই, তবে সেটা পরিকল্পিত উন্নয়ন হতে হবে।

দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, আমরা উন্নয়ন কাজকে স্বাগত জানাই। তবে আমাদের প্রধান দাবি, পুনর্বিন্যাস্ত মহাপরিকল্পনা

এবং সত্যিকারের একটি মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী এই ভবনগুলো নির্মাণ করতে হবে। তা না হলে আমাদের আন্দোলন চলবে।

দর্শন বিভাগের অধ্যাপক এ.এস.এম আনোয়ারুল্লাহ ভূঁইয়া বলেন, রবীন্দ্রনাথ হলকে কেন্দ্র করে যে তিনটি হল আপনি (উপাচার্য) নির্মাণ করতে যাচ্ছেন, সে

হলের নানান আঙ্গিক থেকে সমালোচনা ও সীমাবদ্ধতা উল্লেখ করার সুযোগ রয়েছে। প্রধানত, সেখানকার বিপদাপন্ন প্রাণীদের রক্ষায় কোনো ভূমিকা নেওয়া হয়নি।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমানের সঞ্চালনায় সমাবেশে জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আশিকুর রহমান, শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের জাবি শাখার সমন্বয়ক আবু সাইদ, শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের (মার্ক্সবাদী) সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত দে প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

উল্লেখ্য, গত ৩০জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব পাশে ছাত্রদের

তিনটি ও অন্য একটি স্থানে ছাত্রীদের দুইটি হল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এরপর থেকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা জীববৈচিত্রের ক্ষতি না করে অবকাঠামো

নির্মাণের আহ্বান জানিয়ে বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করছেন।

পিডিএসও/তাজ