একই দিনে ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা, বিপাকে শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০৯ | আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:২২

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি

একই দিনে তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ হওয়ায় বিপাকে পড়েছে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি), নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরপ্রবি) ভর্তি পরীক্ষার তারিখ প্রায় একই সময়ে নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে করে বিপাকে পড়েছে এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, আগামী ২৬, ২৭ এবং ২৮ অক্টোবর নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও আগামী ২৭, ২৮, ২৯ এবং ৩০ অক্টোবর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং ২৮, ২৯ অক্টোবর ও ২, ৩ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়েছে।

তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়েই মোট ৪ দিন এরমধ্যে ২ দিনের পরীক্ষার সময় একই হওয়ায় শিক্ষার্থীরা এই তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধু একটিতেই পরীক্ষা দিতে পারবে। কারণ, অন্য ২ দিনের পরীক্ষা হয়ত মিলে যাওয়া দিনগুলো; আগের দুইদিন নয়তো পরের দুইদিন অনুষ্ঠিত হবে। পথের দূরত্বের কারণে শিক্ষার্থীরা একটি বিশ্ববিদ্যালয়েই পরীক্ষা দিতে পারবে। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে ভর্তির তারিখ নিয়ে তাদের এই সমস্যাগুলোর কথা জানা যায়।

একই দিনে ভর্তি পরীক্ষা হওয়ায় শিক্ষার্থীরা নানান সমীকরণ চিন্তা করে এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোনও একটিকে বেছে নিতে দেখা যাচ্ছে। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে রেখেছেন সবচেয়ে বেশি।

নোবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ৮০০ যা বাকি দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় বেশি। আর নতুন করে দেওয়া নোবিপ্রবির সার্কুলারে ইউনিট বৃদ্ধিসহ পরীক্ষা পদ্ধিতেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। এ ছাড়াও নোবিপ্রবিতে জিপিএ মার্কস কাউন্ট করে ১০০ আর চবিতে ২০ নম্বর। নোবিপ্রবিতে আবেদন না করার পেছনে এই কারণগুলোও তুলে ধরেন ভর্তিচ্ছু এক শিক্ষার্থী এবং সার্বিক দিক বিবেচনা করে নোবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পেছানোর দাবিও করেন ওই শিক্ষার্থী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নোবিপ্রবির শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘যে ইস্যুটা রেইজ হয়েছে এটা অত্যন্ত ভ্যালিড একটা ইস্যু। আগামী সপ্তাহে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে আমাদের মিটিং আছে, আমি মিটিং এ বিষয়টি উত্থাপন করব। সেখানে ভিসিসহ আমরা বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব।’

এ বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু বলে উল্লেখ করেন ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন এবং বিশ্ববিদ্যালয় রিজেন্ট বোর্ড সদস্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ মিঞা।তিনিও মিটিংয়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবেন বলে জানান। তবে এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার প্রফেসর মোমিনুল হক সুস্পষ্টভাবে কিছু জানাতে পারেননি।

পিডিএসও/তাজ