চবি সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় রাবিসাসের নিন্দা

প্রকাশ | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:৪২

রাবি প্রতিনিধি

র‌্যাগিংয়ে বাধা দেওয়ায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) কর্মরত এক সাংবাদিককে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মারধরের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (রাবিসাস)। একইসঙ্গে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার এক যৌথ বিবৃতিতে রাবিসাসের সভাপতি ছালেকীন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জাহিদ এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে রাবিসাস নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের সাংবাদিকতায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা। পেশাদারিত্ব ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে ক্যাম্পাসগুলোতে কর্মরত সংবাদকর্মীদের ভূমিকা প্রশংসনীয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ও দীর্ঘ সময় ধরে সাংবাদিকতার চর্চা ও প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু গত সোমবার এক শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিংয়ে বাধা দেওয়ায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের হাতে মারধরের শিকার হন চবি সাংবাদিক সমিতির সদস্য ও দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশের চবি প্রতিনিধি মিনহাজুল ইসলাম তুহিন।

তারা আরো বলেন, আমরা লক্ষ্য করছি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিককে হুমকি ও মারধরসহ নির্যাতনের ঘটনা বেড়েই চলেছে। যা আমাদের উদ্বিগ্ন করছে। এসব ঘটনার কোনো বিচার না হওয়ায় অপরাধীরা পার পেয়ে যাচ্ছে। এসব নির্যাতন বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে বাধা। সাংবাদিক মারধর ও হত্যার মতো ঘটনায় বিচারহীনতার সংস্কৃতি এসব ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটাচ্ছে। তাই দ্রুত এ ঘটনার জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান তারা।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার দুপুর দেড়টায় শাটল ট্রেনে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিং করেন ছাত্রলীগ নেতা ও ইংরেজি বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের শিক্ষার্থী মাহমুদুল হাসান রুপক। এ সময় বাধা দিলে রুপকের নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী চবি সাংবাদিক মিনহাজুল ইসলাম তুহিনকে এলোপাতাড়ি মারধর করে।

পিডিএসও/হেলাল