‘ফেসবুক শিক্ষার্থীদের মনোযোগ নষ্ট করে দিচ্ছে’

প্রকাশ : ৩১ আগস্ট ২০১৮, ১৪:৪০

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের অডিটরিয়ামে ঢাকার বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের মিলনে এটুআই ও বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের উদ্যেগে গতকাল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হলো ‘একুশ শতকের দক্ষতা অর্জনে কিশোর বাতায়ন’ শীর্ষক সেমিনার।

কিশোর-কিশোরীরাই আগামীদিনের নাগরিক ও দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে উঠবে। তাই তাদের মনন, বুদ্ধি, চিন্তাধারা, ধারণা, চেতনা, চৈতন্য বিকাশে ও আধুনিক বিজ্ঞান মনষ্ক প্রজন্ম গঠনে নানামুখি কাজ করে যাচ্ছে এটুআই। অনলাইন প্লাটফর্ম কিশোর বাতায়ন একটি উদাহরণ। শিক্ষার্থীদের প্রশান্তি, বিনোদন, মেধা বিকাশ ও সৃজনশীলতা চর্চার এক অনলাইন প্লাটফর্ম হলো কিশোর বাতায়ন।

দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ এবং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শক্রমে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগ, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র এবং এটুআইয়ের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত হয়েছে কিশোর বাতায়ন। এখানে ১২-১৯ বছরের কিশোর-কিশোরীদের জন্য রয়েছে পাঠ্যপুস্তক সহায়ক উপকরণ, বই, শিশু চলচ্চিত্র, বিজ্ঞানবিষয়ক কমিক্স, মাথা খাটাও, হাতে কলমে বিজ্ঞানের পরীক্ষা, স্বাস্থ্য সচেতনতা, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমা, বই, জীবনদক্ষতাসহ নানান শিক্ষাসামগ্রী। ২০১৭ সালে শুরু হওয়া কিশোর বাতায়নের সদস্য সংখ্যা ইতোমধ্যে ২ লাখ ৪৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে, যারা নিয়মিত কিশোর বাতায়নে তাদের মতামত এবং কনটেন্ট শেয়ার করছে।

সেমিনারে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। তিনি বলেন, ফেসবুক শিক্ষার্থীদের মনোযোগকে নষ্ট করে দিচ্ছে, এ নিয়ে আমি দুঃশ্চিন্তায় আছি। ওদের বয়সের কোনো জিনিস নেই, কোথাও নেই তাদের উপযোগী কনটেন্ট।

কিশোরদের তিনি বলেন, তোমাদের ভেতর রয়েছে প্রচুর শক্তি, তাই তোমাদের মাঠে নামতে হবে, তোমরা মাঠে গিয়ে খেলো একনাগাড়ে বসে থাকবে না কোথাও। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, আমাদের মাঠের বড় অভাব। তিনি এটুআইয়ের উদ্ভাবনী কিশোর বাতায়নের প্রশংসা করেন। বলেন, পৃথিবীর কোনো দেশেই কিশোরদের এ ধরণের পোর্টাল তৈরি হয়নি।

পিডিএসও/হেলাল