শিক্ষার্থীদের ৯ দফা দাবি

নোবিপ্রবি উপাচার্য অবরুদ্ধ, অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতিতে শিক্ষক সমিতি

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ১৬:০৪

ওহী আলম, নোবিপ্রবি

নয় দফা দাবিতে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(নোবিপ্রবি) প্রশাসনিক ভবনসহ সকল একাডেমিক ভবনে আবারো তালা ঝুলিয়ে, উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখে  সাধারণ শিক্ষার্থীরা। 

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় উপাচার্য তার দপ্তরে প্রবেশ করার পরপরই উপাচার্যের দপ্তরে তালা মেরে দেয় শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা পুরো ক্যাম্পাসের বৈদ্যুতিক সংযোগও বিচ্ছিন্ন করে দেয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার একই দাবিতে প্রশাসনিক ও একাডেমিকসহ সকল ভবনে তালা দেওয়া হয়েছিল। শিক্ষার্থীবান্ধব প্রশাসন ও ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য শতভাগ আবাসিক সুবিধা নিশ্চিতকরণসহ ৯দফা দাবিতে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছিল শিক্ষার্থীরা।

পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামানের সাথে সাধারণ শিক্ষাথীদের একটি প্রতিনিধি দল বৈঠকে বসে। বৈঠকে শিক্ষাথীদের সকল দাবি মেনে নিয়ে সেগুলো অতি দ্রুত বাস্তবায়নের আশ্বাস দেওয়া হয়।

এদিকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতিতে গেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি। বেলা ১২টায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. আবদুল্লাহ-আল-মামুন এবং সাধারণ সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত) মাহাবুবুর রহমান এ তথ্য জানান।

ড. আবদুল্লাহ-আল-মামুন বলেন, আমরা সবসময় শিক্ষার্থীদের যেকোনো যৌক্তিক আন্দোলনের পক্ষে সমর্থন ব্যক্ত করেছি এবং ভবিষ্যতেও শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমানে চলমান এই পরিস্থিতিতে শিক্ষকদের দৈনন্দিন কার্যক্রম ও স্বাভাবিক চলাফেরা দারুণভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এমনকি আমাদের নিজ নিজ অফিস কক্ষে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। তাছাড়া আমাদের সাথে অসদাচরণ করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, যদি প্রশাসন ও শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এমন আশ্বাস দেওয়া হয় যে এমন অসদাচরণ এর পুনরাবৃত্তি আর ঘটবে না তবেই আমরা আমাদের নিয়মিত কার্যক্রমে ফিরে যাব।

শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগ একাত্বতা পোষণ করে।

প্রসঙ্গত, শিক্ষার্থীদের নয় দফা দাবিগুলো হলো- আবাসিক সমস্যার স্থায়ী সমাধান, ২৪ ঘন্টা চিকিৎসা সেবা প্রদান, পূর্বের ব্যাকলগ প্রথা পুনর্বহাল, মানোন্নয়ন পরীক্ষার নূন্যতম জিপিএ ২.৫ করা, ব্যাকলগ ও ইমপ্রুভমেন্ট পরীক্ষার ফি (প্রবেশপত্রসহ) ৩০০ টাকা করা, বিএনসিসি ও রোবার স্কাউটের জন্য বাৎসরিক ফি বাতিল করা, স্নাতকের সকল ক্রেডিট পূরণের জন্য ১৪ সেমিস্টার সুযোগ দেওয়া, অসুস্থ শিক্ষার্থীদের জন্য সিক বেডে পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করা এবং আবাসিক হলগুলোতে ডাইনিংয়ে ভর্তুকি প্রদান করা।

পিডিএসও/রিহাব