হামলায় আহত তরিকুলকে ঢাকায় স্থানান্তর

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৩:০৬ | আপডেট : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৩:১২

রাবি প্রতিনিধি

কোটা সংস্কার আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলায় আহত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থী তরিকুলের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি এক সপ্তাহেও। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়। রোববার সকালে একটি অ্যাম্বুলেন্স তাকে নিয়ে ঢাকায় রওনা হয়। শনিবার রাতে পরীক্ষা-নীরিক্ষা শেষে তাকে ঢাকায় স্থানান্তরের পরামর্শ দেন তার চিকিৎসক ডা. সাঈদ আহমেদ। তার পায়ে অস্ত্রপচার করতে হবে বলেও জানান তিনি।

তরিকুলের তত্ত্বাবধানকারী চিকিৎসক ডা. সাঈদ আহমেদ বলেন, তরিকুলের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে না। তার পা এবং কোমরের হাড় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তার পায়ে অস্ত্রপচার করতে হবে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

তরিকুলের সঙ্গে থাকা সহপাঠীরা জানান, এক সপ্তাহ চিকিৎসার পরও তরিকুলের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি। পায়ে অস্ত্রপচারের জন্য তরিকুলকে ঢাকায় নেয়া হচ্ছে। তরিকুলের ছোট বোন ফাতেমা খাতুন জানান, দরিদ্র পরিবারের মানুষ তারা। বাবা একজন কৃষক। পরিবারে তিন ভাই বোন পড়ালেখা করেন। তার ভাইয়ের চিকিৎসার জন্য প্রতিদিন প্রায় পাঁচ হাজার টাকা প্রয়োজন হচ্ছে। এত টাকা আমরা কোথায় পাবো? আমার ভাইয়ার খুব কষ্ট হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ২ জুলাই বিকেল ৪টার দিকে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে পতাকা মিছিল বের করলে হামলা চালায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে ১৫ জন শিক্ষার্থী আহত হয়। এদের মধ্যে তরিকুলকে ধাওয়া দিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা রামদা, হাতুড়ি, ও লাঠি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে। আঘাতে তরিকুলের ডান পায়ের হাড় ভেঙে যায়। এ ছাড়া মাথায় গুরুতর জখম হয়। পরে পুলিশ উদ্ধার করে তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুই দিন পর তাকে নগরীর রয়্যাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় চিকিৎসক তরিকুলকে ঢাকায় স্থানান্তরের পরামর্শ দেন।

পিডিএসও/হেলাল