‘কওমী স্বীকৃতি আইন দ্রুত বাস্তবায়ন করুন’

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৮, ১৩:২১

অনলাইন ডেস্ক

কওমী মাদরাসা স্বীকৃতি আইনের ধীরগতি রোধ করার আহ্বান জানিয়ে কওমী শিক্ষাসনদ স্বীকৃতি বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্যসচিব শাইখুল হাদিস ইয়াহইয়া মাহমুদ বলেছেন, কওমী মাদরাসার স্বীকৃতির ঘোষণা এসেছে এক বছর হয়ে গেল। অথচ এখনো এটিকে আইনে পরিণত করার যথাযথ কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।

অবিলম্বে আইনে পরিণত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারিভাবে কওমী মাদরাসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা যুগান্তকারী। কিছু বেফাকী জটিলতার কারণে দিন দিন কওমী মাদরাসা স্বীকৃতির ধীরগতির অবস্থা তৈরি হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর রামপুরায় বাইতুল মারুফ মসজিদ মিলনায়তনে কওমী শিক্ষাসনদ স্বীকৃতি বাস্তবায়ন পরিষদ আয়োজিত পরামর্শসভায় ইয়াহইয়াহ মাহমুদ এসব বলেন।

বেফাকসহ হাইআতুল উলইয়ায় কর্মরতদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বর্ষপূতি সম্পন্ন হলেও তাদের কোনো উদ্যোগ নেই। কাজ নেই। তাদের আসলে কখনো স্বীকৃতির জন্য কোনো টানও ছিল না। মুফতে স্বীকৃতি পাওয়ায় তারা কোনোধরনের গুরুত্ব দিচ্ছে না। 

অবিলম্বে সংসদে আইন পাস করে কওমী মাদরাসার সনদের স্বীকৃতির ঘোষণা কোনো আইওয়াস নয় প্রমাণ করার আহ্বান জানিয়ে মাওলানা ইয়াহইয়াহ বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সনদের ঘোষণার বর্ষপূর্তিতে অভিনন্দন জানাই। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষেই কওমী স্বীকৃতিকে আইনে পরিণত করা সম্ভব। 

মাওলানা রুহুল আমীন খান উজানবির সভাপতিত্বে পরামর্শসভায় বক্তব্য দেন—মাওলানা আসআদ আল হোসাইনী, মাওলানা আবদুর রহীম কাসেমী, মাওলানা আবদুল কাইয়ুম সোবহানী, মুফতি ইবরাহীম, মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন, সাংবাদিক মাওলানা মাসউদুল কাদির, মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাইফী, মাওলানা ইমদাদুল্লাহ কাসেমী, মাওলানা হাবিবুল্লাহ গুলজার, মাওলানা হারুনুর রশিদ, মাওলানা লিয়াকত আলী মাসউদ, মাওলানা মাহবুবুর রহমান, মাওলানা আবদুল্লাহ শাকির প্রমুখ।

পিডিএসও/হেলাল