এইচএসসি পরীক্ষা

বৃহস্পতিবারের পরীক্ষার উত্তর পত্র শনিবার হল থেকে উদ্ধার

প্রকাশ : ০৭ এপ্রিল ২০১৮, ১৪:৩৫

এম এ সাইদ খোকন, আমতলী (বরগুনা)

আমতলীতে চলমান এচইএসসি পরীক্ষার বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিতব্য ইংরেজী ১ম পত্রের পরীক্ষার উত্তরপত্র একদিন পর শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় আমতলী সরকারী কলেজ কেন্দ্রের ১০২ নম্বর কক্ষ থেকে উদ্ধার করেছে পরীক্ষীর্থীরা। এ ঘটনায় ওই কক্ষে দায়িত্বরত ৩ শিক্ষককে বহিষ্কারসহ শোকজ করা হয়েছে। 

আমতলী সরকারী কলেজ ও পরীক্ষা ব্যবস্থপনার সাথে জড়িতদের সূত্রে জানা গেছে, আমতলী উপজেলায় মোট ৪শ’ ২৫ জন এইচএসসি পরীক্ষার্থী রয়েছে। ৬ জন অনুপস্থিত। এর মধ্যে আমতলী সরকারী কলেজের ১০২ নং কক্ষে ৮৭ জন ক্যাজুয়াল পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার ছিল ইংরেজী ১ম পত্রের পরীক্ষা। ১০২ নম্বর কক্ষের পরীক্ষা শেষে পরীক্ষার্থীরা যে যার মতো বাড়ি চলে যান। শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ১০২ নম্বর কক্ষের পরীক্ষার্থীরা ইংরেজী দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা দেওয়ার জন্য কক্ষে ঢোকা মাত্র মেঝেতে একটি উত্তর পত্র দেখতে পান এবং উত্তর পত্রের রোল নম্বর মিলিয়ে দেখেন এটি ইউনুস আলী খান কলেজের মালা নামের এক পরীক্ষার্থীর। (রোল-৮২৩৮০৮, রেজিষ্ট্রেশন নম্বর-১১১৫২৬৩০১৬) ওই পরীক্ষার্থী নিজেও তখন ওখানে উপস্থিত ছিল। সে তার উত্তরপত্র এভাবে পরে থাকতে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। পরে উত্তর পত্রটি চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মো: ইউসুফ হল কর্তৃপক্ষের নিকট পৌঁছে দেন। পরীক্ষার ভারপ্রাপ্ত হল সচিব বকুল নেছা মহিলা কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো: মজিবুর রহমান বলেন, ভুলবসত এটি হয়েছে এবং কর্তব্যে অবহেলার দায়ে ৩ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের নির্দেশে উদ্ধার হওয়া উত্তরপত্রটি আমি নিজে নিয়ে যাব। 

এ বিষয়ে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো: আনোয়ারুল আজিমের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি অপরিচিত লোকের সাথে কোন কথা বলবেন না বলে জানান।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: সরোয়ার হোসেন বলেন, খবর পেয়ে আমি কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সত্যতা পাই। বৃহস্পতিবার ওই কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকারী ৩ শিক্ষক তাদের দায়িত্ব পালনে চরম অবহেলা করেছে।  অবহেলার দায়ে আমতলী সরকারী কলেজের প্রভাষক সাইফুর রহমান, টিয়াখালী কলেজের সাইফুল ইসলাম ও ওই একই কলেজের তৌহিদুল ইসলামকে চলমান পরীক্ষা থেকে অব্যাহতি ও শোকজ করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া উত্তরপত্রটি ভারপ্রাপ্ত কেন্দ্র সচিব মো: মজিবুর রহমানকে বোর্ডে  পৌঁছে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। যাতে পরীক্ষার্থীর কোন সমস্যা না হয় সে বিষয়ে আমরা ব্যবস্থা নেব।

পিডিএসও/রিহাব