জুনিয়র নেতাকর্মীদের সংবাদ সম্মেলন

শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের ইমেজ সংকট নিরসনে কেন্দ্রের দৃষ্টি আকর্ষণ

প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:১০

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) শাখা ছাত্রলীগের ‘ইমেজ সংকট নিরসন’ চেয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সংবাদ সম্মেলন করেছে জুনিয়র পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি  রুহুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান খানের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে ব্যাবস্থা নিতে  মঙ্গলবার দুপুরে শাবিপ্রবি পেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। 
‘শাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের কর্মী’ ব্যানারে আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপমুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক লক্ষণ চন্দ্র বর্মন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন-সদস্য কাজী তৌফিকুর রহমান, সোয়েব আহমেদ, বাছির মিয়া, ইয়ামিন হোসেন প্রমুখ।
তারা লিখিত বক্তব্যে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরেন এবং সব অপরাধের প্রমাণ রয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানান। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ২০১৩ সালে মাস্টার্স শেষ করেছেন এবং বর্তমানে তিনি অছাত্র বলে উল্লেখ করেন। পাশাপামি তাকে ফাওখোর, চোর, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ ও নিয়োগ বাণিজ্যের হোতা বলে উল্লেখ করেন। 
এছাড়া সাধারণ সম্পাদক ইমরান খানের শিক্ষাগত যোগ্যতায় প্রশ্ন তুলেন । তারা বলেন দীর্ঘ ৮ বছরে ইমরান খান ১৪০ ক্রেডিটের মধ্যে মাত্র ২৪ ক্রেডিট সম্পন্ন করেছেন যা অত্যন্ত হাস্যকর। তারা এ প্রশ্নও করেন যিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রই না, তিনি কিভাবে একটি ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক হন। সভাপতি-সম্পাদক উভয়ের এসব কর্মকান্ডে আমরা লজ্জিত বোধ করি বলে মন্তব্য করেন তারা। এছাড়া তাদের অধীনে আর কোনো কর্মসূচিতে অংশ নিবে না বলে জানানো হয়। এমনকি আসছে ৪ জানুয়ারী সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীও তারা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের ব্যানারে করবেন না বলে জানান সাংবাদিকদের।
সংবাদ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা পথভ্রষ্ট কর্মী ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করা হয়েছে বলে দাবি সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের। তাদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবু সাঈদ আকন্দ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজের ইন্ধনে তার কর্মীরা এ কাজ করেছে। 
তবে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজ বলেন, “এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। তবে তাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা মিথ্যে নয়। শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের স্বার্থে তাদের পদত্যাগ করা উচিত।”

পিডিএসও/রানা