জাপানি প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

প্রকাশ : ৩১ মে ২০১৯, ১১:০৬

সম্পাদকীয়

প্রাণী ও জীবজগতে একমাত্র মানুষই স্বপ্ন দেখে। স্বপ্ন দেখে বলেই তারা ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় মেতে উঠতে পারে। আবিষ্কারের প্রধান পাললিক ভূমির নাম স্বপ্ন। আর এ স্বপ্নই মানুষকে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার প্রশ্নে উৎসাহিত করে। উন্নয়নের গতিকে করে ত্বরান্বিত। বাংলাদেশের উন্নত দেশ হওয়ার স্বপ্ন আজকের নয়। জন্মের পর থেকেই এ স্বপ্ন দেখে আসছে দেশটি। আর এ স্বপ্ন দেখতে পারার পেছনে যে মানুষটির অক্লান্ত পরিশ্রম ও কাজ করেছেন, এ সময় তার নাম উচ্চারিত না হলে গল্পের শুরুটাই যেন বেমানান হয়ে পড়ে। যিনি গোটা জাতিকে স্বপ্ন দেখতে শিখিয়েছেন। ইতিহাসের এক মহান নেতা ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’। যিনি নিজে স্বপ্ন দেখতেন এবং মানুষকে স্বপ্ন দেখাতে ভালোবাসতেন। তার সেই স্বপ্নের পথে চলতে চলতে এ দেশের মানুষ স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে এবং তারই ধারাবাহিকতায় সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে চলেছে।

আর এ স্বপ্ন পূরণে সহায়তা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দিয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। গত বুধবার টোকিওতে জাপান ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর দেয় যৌথ বিবৃতিতে বিষয়টি ওঠে এসেছে। বৈঠকের পর দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য জাপানের সঙ্গে ২৫০ কোটি ডলারের উন্নয়ন সহায়তা চুক্তি করেছে বাংলাদেশ। এ সহায়তা অর্থে মাতারবাড়ি সমুদ্রবন্দর উন্নয়ন প্রকল্প, ঢাকা মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন-১), বিদেশি বিনিয়োগ সহায়ক প্রকল্প (২), জ্বালানি দক্ষতা ও সুরক্ষা সহায়ক প্রকল্প (পর্যায়-২) এবং মাতারবাড়ি আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পে অর্থায়ন করা হবে।

জাপান আমাদের বন্ধুপ্রতিম দেশ। জন্মের প্রথম প্রহর থেকেই এ বন্ধুত্ব। ৪৭ বছর পেরিয়ে আসার পরেও যা অটুট রয়েছে। আমাদের দুর্যোগে এবং প্রয়োজনে সব সময়ই আমরা দেশটিকে পাশে পেয়েছি। আমাদের সম্পর্ক আরো ঘনীভূত হয়েছে। আর সেই ঘনীভূত সম্পর্কের কথা জানাতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধু যে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন এবং উন্নয়নের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিলেন, তার পেছনে বড় অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিল জাপানের উন্নয়ন ইতিহাস। স্বাধীনতা লাভের ৪৮ বছর পর বাংলাদেশ এখন আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারে দেশ এখন বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে চলেছে। আর এ ক্ষেত্রে আমরা সব সময়ই জাপানকে পাশে পেয়েছি। একই সময়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেছেন, বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণে তার দেশ সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে।

শিনজো আবে, ১৬ কোটি মানুষের পক্ষ থেকে তোমাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

পিডিএসও/হেলাল