টাইগারদের অভিনন্দন

প্রকাশ : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:০৬

সম্পাদকীয়

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে এক স্বর্ণোজ্জ্বল দিন ছিল রোববার। তবে এ দিনটিকে শুধু স্বর্ণোজ্জ্বল বললেই হবে না, বলা উচিত অনেক অর্জনে সিক্ত এক অবিস্মরণীয় দিন। এদিন টাইগাররা প্রথমবারের মতো টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে জয়লাভের মাধ্যমে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করে। দুই টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচটিতে সফরকারী শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তিন দিনেই ইনিংস এবং ১৮৪ রানে হারিয়ে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জয় করে।

এর আগে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম টেস্টেও টাইগাররা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৬৪ রানের ব্যবধানে পরাজিত করে। এ জয়ের আগে ২০০৯ সালেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ বাংলাদেশের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল। তবে ওই জয়ের তুলনায় এটিই সবচেয়ে বড় অর্জন, যা বাংলাদেশকে নিয়ে গেছে অনন্য উচ্চতায়।

চলতি বছরের জুলাইয়ে অ্যান্টিগায় নিজেদের সর্বনিম্ন ৪৩ রানে অলআউট হওয়া, সেই পথ ধরে পরে ইনিংস ও ২১৯ রানে হার; অতঃপর জ্যামাইকাতে ১৬৬ রানের আরেকটি পরাজয়ের মাধ্যমে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল টাইগাররা, যা প্রচ-ভাবে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নাড়িয়ে দিয়েছিল। এরপর ডিসেম্বরে এসে সাকিব আল হাসানরা পাল্টা শোধ নিলেন ঘূর্ণিবলের ধাঁধায়। ফলে অনেক প্রাপ্তির এ অর্জনকে ছোট করে দেখার কোনো সুযোগ নেই।

২০০০ সালে বাংলাদেশ টেস্ট আঙিনায় প্রধম প্রবেশ করে। সেই থেকে গত ১৮ বছরে ১১২টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে হার ৮৩ ম্যাচে। এগুলোর মধ্যে ইনিংস ব্যবধানে হার ৩৮টিতে। টেস্ট যুগকে দুই ভাগে ভাগ করলে অতীতের বিবর্ণতার ছবি স্পষ্ট হবে আরো। নিজেদের প্রথম ৫৭ টেস্টের মধ্যেই ৩৩ বার ইনিংস ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ। আর পরের ৫৫ টেস্টে পাঁচবার। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটে ওই দুঃসময় অনেকটাই কেটে গেছে টাইগারদের। যার প্রমাণ মিলেছে রোবরার।

এর ধারাবাহিকতা অবশ্যই ধরে রাখতে হবে। কারণ, আমরা এমন একটি দলের বিপক্ষে এই জয় লাভ করলাম, যারা টেস্ট ক্রিকেটে নিঃসন্দেহে একটি অভিজাত দল। এই সিরিজের প্রথম টেস্টে মুমিনুলের সেঞ্চুরি, বোলার নাঈম হাসান ও তাইজুলের অসামান্য নৈপুণ্য এবং দ্বিতীয় টেস্টে মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরি, সাকিব ও সাদমানের হাফসেঞ্চুরি ও স্পিনার মিরাজের ঘূর্ণিজালের কৃতিত্ব-এ অর্জনে অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে। জিম্বাবুয়ে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পরপর তিনটি টেস্ট জয় লাভ করে বাংলাদেশ যে এর ক্রমোন্নতি ও শক্তিমত্তার স্বাক্ষর রাখল, তা অবিস্মরণীয় ও দুর্লভ।

আমরা জানি, টেস্টের তুলনায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে ম্যাচে সাফল্য অনেক বেশি। তবে সাম্প্রতিককালে টেস্টেও ভালো করছে। পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, এ বছর ৮ টেস্টের তিনটিতেই জয়লাভ করেছে বাংলাদেশ। পরাজিত হয়েছে ৪টিতে এবং একটি ড্র করেছে।

আমরা আশা করি, টাইগারদের এই সাফল্য অব্যাহত থাকবে। টেস্ট ক্রিকেটের অভিজাত দল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় টেস্ট সিরিজ জয়লাভ করায় আমরা বাংলাদেশের দলের প্রতিটি খেলোয়াড়, কোচ, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ অগণিত ভক্ত-অনুরাগীকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন।

পিডিএসও/তাজ