স্বাধীনতা বনাম স্বেচ্ছাচারিতা

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৮, ১৫:০৩

সম্পাদকীয়

দেশ স্বাধীন হয়েছে ৪৭ বছর। কিন্তু স্বাধীনতার অর্থ আমরা কি বুঝতে শিখেছি। স্বাধীনতার এতগুলো বছর পার হয়ে এসেও বলতে হয়, এর প্রকৃত অর্থ আমরা অনুধাবন করতে পারিনি। আমরা বুঝতে পারিনি যে, স্বাধীনতার অর্থ স্বেচ্ছাচারিতা নয়। আমাদের চারপাশে আমরা যা কিছু দেখি তার বড় অংশই আইন না মানার প্রবণতা। এই প্রবণতাই হচ্ছে স্বেচ্ছাচারিতার একটি অংশ। এ দেশে ভোক্তারা দীর্ঘদিন ধরে এ স্বেচ্ছাচারিতার অধীনস্ত হয়েই বসবাস করছে। ধারাবাহিকভাবে বসবাস করতে করতে এখন যেন অনেকটা অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। প্রতিবাদের ভাষাটাও যেন চলে গেছে হিম থেকে হিমাগারে।

এক দিনে তারা হিমাগারে প্রবেশ করেনি। এ দেশের প্রশাসন অনিয়মকে নিয়মে পরিণত করায় এসব মানুষ ধীরে ধীরে হিমাগারে প্রবেশ করতে বাধ্য হয়েছে। আর অনিয়ম প্রবেশ করেছে সমাজের অলিগলিতে। নিত্যপ্রয়োজনীয় যে কোনো জিনিস ক্রয় করতে গেলে ক্রেতাদের যেন ভোগান্তির শেষ নেই। একই পণ্য পাশাপাশি এক-একটি দোকানে এক এক রকম দাম। বাধা দেওয়ার কেউ নেই। এখানে আইন কোনো কাজ করে না বলেই স্বেচ্ছাচারিতা আজ আইনে পরিণত হয়েছে।

রাজধানী শহরে রিকশা একটি গুরুত্বপূর্ণ যানবাহন। প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ এই বাহনে যাতায়াত করে। আশ্চর্যজনক হলে সত্য, ভাড়ার ব্যাপারে চালকের ইচ্ছার ওপর যাত্রীকে নির্ভর করতে হয়। ঢাকা শহরের রিকশাযাত্রীরা বাহকের ইচ্ছার জাঁতাকলে পিষ্ট। এখানেও অনিয়মই নিয়ম। একই দূরত্বে যাত্রীকে গুনতে হচ্ছে এক-এক রকম ভাড়া। রিকশাচালক যার কাছ থেকে যত ভাড়া আদায় করতে পারেন, সেটাই গুনতে হয় যাত্রীকে। বেবিট্যাক্সি অথবা সিএনজি! সেখানে তো চলছে হরিলুট। সরকারিভাবে ভাড়া নির্ধারণ করা থাকলেও তা মানছেন না কেউ। লুটেরা পুঁজির চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের কারণে সমাজের প্রতিটি স্তরেই আজ একই চিত্র।

এ তো গেল অশিক্ষিত অথবা স্বল্প শিক্ষিতদের আইন না মানার গল্প। শিক্ষিতরাও আইন না মানার প্রতিযোগিতায় কারো চেয়ে পিছিয়ে নেই। আর সে কারণেই দুদককে দিতে হয়েছে চূড়ান্ত হুশিয়ারি। আসন্ন এসএসসি পরীক্ষায় ফরম পূরণে স্কুল কর্তৃপক্ষ সরকার নির্ধারিত ফির বাইরে অতিরিক্ত ফি আদায় করার অভিযোগ ওঠার পর দুদকের এই পদক্ষেপ। দুদক বলেছে, অতিরিক্ত ফি আদায় করা হলে তারা অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে। তাদের এ সিদ্ধান্ত স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে একটি ভালো পদক্ষেপ। নিয়ম লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে এটি একটি যুগান্তকারী কর্মকাণ্ড হিসেবে বিবেচিত হবে যদি সিদ্ধান্তটি কার্যকর করা যায় আর সেখানেই আমাদের প্রত্যাশা।

পিডিএসও/হেলাল