এমন মৃত্যু কাম্য নয়

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৮, ১১:১৯

সম্পাদকীয়

সব মানুষ এক রকম নয়। ভালো-মন্দ-খারাপ—এ তিনের দ্বন্দ্বের মধ্য দিয়েই গড়ে উঠেছে সমাজ ও সভ্যতা। তবে এ কথাও সত্য যে, শেষ পর্যন্ত ভালোরই জয় হয়েছে। ন্যায়-অন্যায়, সত্য-মিথ্যা আর ভালো ও মন্দের মাঝে যে দ্বন্দ্ব তার জন্ম মানব ইতিহাসের গোড়া থেকেই। আর এ দ্বন্দ্বের মধ্য দিয়েই বিকশিত হয়েছে পৃথিবী। সুতরাং দ্বন্দ্ব যখন থাকবে, তখন সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে থেকে লড়াই করাটাই হবে মানবতার ধর্ম। ধর্ম রক্ষার জন্য সব সময় যে দুটি পক্ষের মাঝে লড়াই হয়েছে, তার একটি মানুষ আর বিপরীত পক্ষের নাম অমানুষ।

এ রকম দুই অমানুষের খবর এসেছে পত্রপত্রিকায়। তাদের অপকর্মের জন্য এক শিশুকে জীবন দিতে হয়েছে। অপমৃত্যু হয়েছে সাংবাদিক রুবেল খানের শিশুকন্যা রাইফার। ঘটনা তদন্তে চিকিৎসায় অবহেলার প্রমাণ মেলায় দুই ডাক্তারকে চাকরিচ্যুত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ঘটনা অনেক বড়। তুলনামূলক বিচারে অপরাধীকে দণ্ড দেওয়া হয়েছে লঘু। তবু বলতে হয়, বহু দিন পর আমরা ডাক্তারদের অবহেলাজনিত কারণে রোগীর মৃত্যু হওয়ার প্রশ্নে অপরাধীদের বিচার হতে দেখলাম। দেখলাম শাস্তি পেতে। আগে যা কখনো হতে দেখা যায়নি। ইতোপূর্বে যতবারই ডাক্তারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে সম্মিলিতভাবে তারা প্রতিরোধে দাঁড়িয়েছেন। কোনো প্রকার তদন্ত ছাড়া তাদের এ পক্ষপাতিত্ব সেসময় সাধারণ মানুষকে কেবল আহতই করেনি, টেনে নামিয়েছে বিশ্বাসহীনতায়।

ডাক্তারদের প্রতি সাধারণ মানুষের এই বিশ্বাসহীনতা বৃদ্ধি পাক—এটা কখনোই আমাদের কাম্য হতে পারে না। এ ছাড়া সব ডাক্তার যে একই চিন্তাচেতনায় নিজেকে গড়ে তুলেছেন, এমনটাও নয়। আগেই বলেছি, সমাজে ভালো এবং খারাপের অবস্থান পাশাপাশি। তবে এ কথাও সত্য যে, ভালোরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। এক বালতি দুধে এক ফোঁটা গো-চুনা যেমন ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে, একইভাবে সংখ্যালঘিষ্ট কিছু অমানবিক ডাক্তারের কারণে গোটা চিকিৎসা ব্যবস্থার মর্যাদা ক্ষুণ্ন হবে—এটাও কাম্য নয়। সুতরাং পেশার মর্যাদা রক্ষার্থে সর্বাগ্রে এই পেশায় নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গকেই দায়িত্ব নিতে হবে। তাদের কতিপয় সদস্যের অপকর্মের দায় তারা কেন বহন করবে?

পেশার ধর্মই যখন সেবা; তখন তাদেরকেই প্রমাণ করতে হবে কোনো অন্যায়ের সঙ্গে তাদের সখ্যতা থাকতে পারে না। এ পেশায় যে বা যারা যেকোনো ধরনের অনৈতিকতার সঙ্গে যুক্ত থাকবে তাকেই জবাবদিহিতার আওতায় আনা বাধ্যতামূলক করা গেলে সম্ভবত চিকিৎসা ব্যবস্থা তার মর্যাদা রক্ষায় সমর্থ হবে এবং এটাই বৃহত্তর জনসমষ্টির প্রত্যাশা।

পিডিএসও/হেলাল